‘রাজপথে কাউকে সমাবেশ করতে দেওয়া হবে না’

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১:৫৮ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৭, ২০১৮ | আপডেট: ১১:৫৮:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৭, ২০১৮
ওবায়দুল কাদের। ফাইল ছবি

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের জন্য সরকার বিএনপিকে অনুমতি দিয়ে দিয়েছে। অথচ তারা আজও বলছে, অনুমতি দেয়নি। বিএনপি মিথ্যার রাজনীতি করে।

আজ বুধবার সকালে রাজবাড়ীর পাংশা উপজেলার গোপালপুর উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে উপজেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় কাদের এসব কথা বলেন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, রাজপথে কাউকে কোনো সভা সমাবেশ করতে দেওয়া হবে না। আমরাও করব না। রাজপথে কোনো বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি করলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বিএনপিকে সমুচিত জবাব দেবে।

পাংশা আওয়ামী লীগের সভাপতি শফিকুল ইসলাম আরজের সভাপতিত্বে জনসভায় বক্তব্য দেন শিক্ষাপ্রতিমন্ত্রী কাজী কেরামত আলী, সংসদ সদস্য মো. জিল্লুল হাকিম, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, কুষ্টিয়া আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. সদর উদ্দিন খান, পাংশা উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা হাসান আলী বিশ্বাস প্রমুখ।

ওবায়দুল কাদের উপস্থিত কর্মী-সমর্থকদের প্রতি প্রশ্ন রেখে বলেন, যারা জাতিসংঘের মহাসচিবের নিমন্ত্রণ নিয়ে মিথ্যাচার করেছে, তাদের হাতে বাংলাদেশ-গণতন্ত্র ও আইনের শাসন কি নিরাপদ?

কাদের বলেন, বিএনপির কোনো নীতি-আদর্শ নেই। বিএনপির দিন যতই এগিয়ে যাচ্ছে ততই তারা ভুয়া হয়ে যাচ্ছে। ধানের শীষ এখন বিষ হয়ে যাচ্ছে। আর আওয়ামী লীগের দিন যতই এগিয়ে যাচ্ছে, নৌকা তীব্র বেগে ততই অগ্রসর হচ্ছে।

দেশের অগ্রগতি ও উন্নয়নের কথা তুলে ধরে সেতুমন্ত্রী বলেন, দেশের ১৬ কোটি মানুষের মধ্যে ১৪ কোটি মানুষের হাতে এখন মোবাইল। ১০ কোটি ইন্টারনেট। উন্নয়নের আর কিছু কি বাকি আছে? হ্যা আছে। দ্বিতীয় পদ্মা সেতুর কাজ। সেই নির্মাণ কাজেরও প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গেছে। প্রথম পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ হলেই দৌলতদিয়া-পাটুরিয়ায় দ্বিতীয় পদ্মা সেতু নির্মাণ শুরু হবে। আমরা যে প্রতিশ্রুতি দেই, তা করি। তিনি উন্নয়নের এই অগ্রযাত্রাকে অব্যাহত রাখতে নৌকা প্রতীকে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানান।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বলেন, দলের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি করবেন না। ঘরের মধ্যে ঘর করবেন না। মশারির মধ্যে মশারি টাঙাবেন না। সামনে নির্বাচন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে যে আমলনামা আছে তার ভিত্তিতেই আগামী নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন চূড়ান্ত করা হবে। দল যাকে মনোনয়ন দেবে তার পক্ষেই কাজ করবেন। ব্যানার ফেস্টুন, মোটর শোভাযাত্রা করে মনোনয়ন পাওয়া যাবে না। জনমত যার পক্ষে আছে শেখ হাসিনা তাকেই মনোনয়ন দেবেন।

সেতুমন্ত্রী পরে রাজবাড়ী বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ খুশি রেলওয়ে ময়দানে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় ভাষণ দেন।

এর আগে মন্ত্রী পাংশার শিয়ালডাঙ্গি মোড়ে আহলাদিপুর-রাজবাড়ী-পাংশা-কুমারখালী-কুষ্টিয়া আঞ্চলিক মহাসড়কের তালতলা থেকে শিয়ালডাঙ্গি পর্যন্ত ৩৩ দশমিক ৩৯ কিলোমিটার সড়ক প্রশস্তকরণ ও পুনর্নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন।