রুবেলা নিয়ন্ত্রণে পুরস্কার পেল বাংলাদেশ

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৫:০১ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১০, ২০১৮ | আপডেট: ৫:০১:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১০, ২০১৮
ফাইল ছবি

রুবেলা এবং কনজেনিটাল রুবেলা সিনড্রম নিয়ন্ত্রণে সাফল্যের জন্য পুরস্কার পেয়েছে বাংলাদেশ। ভারতের দিল্লিতে ৩ থেকে ৭ সেপ্টেম্বর বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু) আয়োজিত সভায় স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেকের হাতে এই পুরস্কার তুলে দেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মহাপরিচালক ডা. টেড্রস আধানোম ঘিব্রেয়েসাস। একইসঙ্গে বাংলাদেশ আগামী ২০১৯ সাল থেকে তিন বছরের জন্য হু’র এক্সিকিউটিভ বোর্ডের নির্বাহী সদস্য পদে নির্বাচিত হয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ এসব তথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক হু’র মহাপরিচালকের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। এ সময় সভায় রোহিঙ্গাদের স্বাস্থ্যসেবা সুন্দরভাবে দেওয়ার জন্য হু’র প্রশংসা পেয়েছে বাংলাদেশ।

একইসঙ্গে আগামী জানুয়ারিতে হু’র মহাপরিচালক বাংলাদেশ সফরে এসে রোহিঙ্গা পরিস্থিতি দেখবেন বলে জানিয়েছেন।’তিনি বলেন, ‘আমরা আমাদের পক্ষ থেকে হু’র মহাপরিচালককে বলেছি, বাংলাদেশে ওষুধের একটি উন্নতমানের ল্যাবরেটরি রয়েছে। টেকনিক্যাল কর্মী না পাওয়ার কারণে এটি পরিচালনা করা যাচ্ছে না। এজন্য উপযুক্ত কর্মীর বিষয়ে সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে। দেশের সরকারি হাসপাতালগুলো যেন আরও ভালো সেবা দিতে পারে, বেশি রোগীবান্ধব করা যায় সেজন্য সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে।’

তিনি জানান, সার্বজনীন স্বাস্থ্যসেবা বিশেষ করে গরীব রোগীদের স্বাস্থ্যসেবা কীভাবে নিশ্চিত করা যায়, সেই বিষয়ে হু যেন পরামর্শ দেয় সেই সহযোগিতাও চাওয়া হয়েছে। হু’র মহাপরিচালক এসব বিষয়ে সাহায্য করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। তিনি এই বিষয়গুলোতে যারা দক্ষ তাদের বাংলাদেশে পাঠাবেন বলে জানিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, রুবেলা এক ধরনের ভাইরাস, যা সহজেই একজন আক্রান্ত মানুষ থেকে অন্য মানুষের দেহে ছড়াতে পারে। হাঁচি-কাশির মাধ্যমে বেশি ছড়ায়। গর্ভকালীন কেউ রুবেলায় আক্রান্ত হলে, বিশেষ করে প্রথম তিন মাস অনাগত সন্তানের জন্মত্রুটি হওয়ার ঝুঁকি তৈরি হয়।

রুবেলায় আক্রান্ত ব্যক্তির শরীরে র‌্যাশের মতো হয়, অল্প জ্বর থাকে, অস্থিসন্ধিতে ব্যথা হয়, চোখ লালচে হতে পারে। প্রথম র‌্যাশ দেখা দেয় মুখমণ্ডলে। পরে পুরো শরীরে ছড়িয়ে পড়ে।