রোজা রেখে মুখের দুর্গন্ধ দূর করবেন যেভাবে

প্রকাশিত: ১০:১২ অপরাহ্ণ, মে ৭, ২০১৯ | আপডেট: ১০:১২:অপরাহ্ণ, মে ৭, ২০১৯

অনেকেই রোজার সময় মুখে দুর্গন্ধের সমস্যায় ভোগেন। রোজা রেখে দীর্ঘ সময় না খাওয়ার জন্য এই দুর্গন্ধের সৃষ্টি হয়। এ ছাড়া পর্যাপ্ত পরিমাণ কার্বোহ্রাডেট, তাজা ফল এবং সবজি না খাওয়াও মুখে দুর্গন্ধের কারণ। রোজায় মুখে দুর্গন্ধরোধে দেয়া হলো কিছু পরামর্শ।

পবিত্র রমজানে অনেক ছোট ভুলের কারণে রোজা মাকরুহ বা ভেঙে যেতে পারে। তাই রোজা রেখে অনেক দাঁত ব্রাশ করেন না। আর এতে মুখে গন্ধ হওয়াটাই স্বাভাবিক। সেক্ষেত্রে সেহেরি ও ইফতারের পর অবশ্যই দাঁত ব্রাশ করতে হবে। অনেকেই এই সময়ে মাইথ ওয়াশ ব্যবহার করেন কিন্তু জানেন কি মাউথ ওয়াশ দাঁতের জন্য মারাত্নক ক্ষতিকর।

আমেরিকান ডেন্টাল অ্যাসোসিয়েশন-এর বিজ্ঞানীরা বলছেন, মাউথওয়াশ ব্যবহার করলে ডায়াবেটিসের সম্ভাবনা কয়েক গুণ বেড়ে যায়। কিন্তু কেন এমন হয়? মাউথওয়াশে যে উপাদানগুলো থাকে অর্থাৎ জিঙ্ক গ্লুকোনেট, ট্রাইক্লোসান, থায়মল, সেটাইলপ্লিরি়ডিনিয়াম ক্লোরাইড, ইত্যাদি শরীরে খারাপ প্রতিক্রিয়া ফেলে। এরা ডায়াবেটিস হওয়ার ঝুঁকি বাড়িয়ে দেয়।

তাই মাউথওয়াশে দ্রুত মুখ থেকে সুবাস ছড়ালেও, তা নিয়মিত ব্যবহার করলে পরবর্তীতে বড় সমস্যা হতে পারে। তা হলে উপায়? বিজ্ঞানীদের মতে, দাঁত ও মাড়ি ভাল রাখতে ও দুর্গন্ধ কমাতে মাউথওয়াশের বদলে প্রাকৃতিক কিছু উপায় ব্যবহার করতে পারেন।

দাঁতের ফাঁকে খাবার জমে থাকলে মুখ থেকে দুর্গন্ধ ছড়ায়। ইফতারিতে আপেল, গাজর এই ধরনের ফল চিবিয়ে খান। এতে দাঁতের ফাঁকে খাবার জমতে পারে না ।

লবঙ্গ প্রাকৃতিক মাউথ ওয়াশের কাজ করে। ইফতারির পর মুখে লবঙ্গ রাখতে পারেন কিছু ক্ষণ। আর তা না হলে লবঙ্গ পানিতে ভিজিয়ে সেই পানি দিয়ে কুলকুচি করুন। এতে দুর্গন্ধ চলে যায়।

সেহরির পর ও ইফতারির পর অবশ্যই ব্রাশ করুন। গন্ধ যুক্ত খাবার যেমন পেঁয়াজ, রসুন ইত্যাদি সেহরিতে বা ইফতারে খেলে অবশ্যই ব্রাশ করে নিন।

এই দুই বেলা ব্রাশ করার সময়ে ভাল করে জিভ পরিষ্কার করুন।

মুখের দুর্গন্ধ দূর করতে গ্রিন টি আর কালো চা খান। চা মুখে দুর্গন্ধ সৃষ্টিকারী ব্যাকটেরিয়াকে নষ্ট করে।

মাউথওয়াশের বদল টি-ট্রি অয়েল, পিপারমেন্ট অয়েল বা লেমন অয়েল ব্যবহার করুন।

ধূমপান যত সম্ভব কম করুন।