লক্ষ্মীপুর-৪ আসনে দুই ভিআইপির লড়াই, কপাল পুড়ছে আ.লীগ-বিএনপির

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১০:০২ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৮, ২০১৮ | আপডেট: ১০:০৪:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৮, ২০১৮
আসম আবদুর রব ও মেজর (অব.) আবদুল মান্নান। ফাইল ছবি

দুই ভিআইপি প্রার্থীকে নিয়ে লক্ষ্মীপুর-৪ (রামগতি ও কমলনগর) আসনে যেন আলোচনার রংধনু সৃষ্টি হয়েছে। একাদশ সংসদ নির্বাচনে মেঘনা উপকূলীয় এ আসনে জোটগতভাবে জেএসডি এবং বিকল্প ধারার দুই শীর্ষ নেতার চমক আসছে বলেও নেতাকর্মীরা প্রচার করছেন।

এতে কপাল পুড়তে বসেছে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীদের। যদিও দলের চূড়ান্ত মনোনয়ন পাওয়ার জন্য ঢাকায় অবস্থান করে প্রার্থীরা এখন শেষ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

ভিআইপি মুখগুলো হলো- জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডির) সভাপতি জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম সমন্বয়ক আসম আবদুর রব (তারা) ও বিকল্প ধারা বাংলাদেশের মহাসচিব মেজর (অব.) আবদুল মান্নান (কুলা)।

তারা এ আসন থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। শেষ পর্যন্ত সব কিছু ঠিক থাকলে আওয়ামী লীগ জোট থেকে আবদুল মান্নান (নৌকা) এবং বিএনপি জোট থেকে আসম আবদুর রব (ধানের শীষ) নির্বাচনের মাঠে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন বলে রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের কাছ থেকে শোনা যাচ্ছে। যদিও আ স ম আবদুর রব এ আসন থেকে তিনবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। আবদুল মান্নান নির্বাচনে অংশ নিলেও ফসল ঘরে তুলতে পারেননি।

এদিকে, আওয়ামী লীগের শক্ত প্রার্থী হিসেবে বর্তমান সংসদ সদস্য মোহাম্মদ আবদুল্লাহ, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের কৃষি ও সমবায় বিষয়ক ফরিদুন্নাহার লাইলী মাঠে রয়েছেন।

ফরিদুন্নাহার লাইলী লক্ষ্মীপুর-৪ সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য ছিলেন। নতুন প্রার্থী হিসেবে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক উপ-কমিটির সহ-সম্পাদক মো. আবদুজ্জাহের সাজু নির্বাচনী এলাকায় প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে আলোচনায় রয়েছেন।

দলীয় সূত্র জানায়, এ আসনে দলীয় মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম ফারুক পিংকু, কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা তাসভীরুল হক অনু, রামগতি পৌরসভার সাবেক মেয়র আজাদ উদ্দিন চৌধুরী, উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান রোকেয়া আজাদ, কমলনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি একেএম নুরুল আমিন, সাধারণ সম্পাদক একেএম নুরুল আমিন রাজু, সাংগঠনিক সম্পাদক ড.শামছুল কবির ও আওয়ামী লীগ নেতা এ কে এম শরীফ উদ্দিন।

অন্যদিকে বিএনপির প্রার্থী হিসেবে সক্রিয় রয়েছেন রামগতি উপজেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য এ বি এম আশরাফ উদ্দিন নিজান, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি সফিউল বারী বাবু ও কেন্দ্রীয় তাঁতী দলের সহ-সভাপতি আবদুল মতিন। তারা তিনজনই দলীয় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করে জমা দিয়েছেন। ইতোমেধ্যে তারা দলীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকদের সঙ্গে যোগাযোগ বাড়িয়ে নির্বাচনী নির্দেশনা দিচ্ছেন।

কমলনগর ও রামগতির আওয়ামী লীগ ও বিএনপির বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, জেএসডি ও বিকল্প ধারা এখানে সাংগঠনিকভাবে পাকাপোক্ত নয়। আওয়ামী লীগ-বিএনপির অবস্থান রয়েছে জোরালো। যদিও বিএনপির ওপর ভর করে দশম সংসদ নির্বাচনে আন্দোলনের নামে জামায়াত-শিবির শক্তির মহড়া জানান দিয়ে ব্যাপক সহিংসতা চালিয়েছে। তখন থেকেই জনগণ জামায়াত থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। আওয়ামী লীগ ও বিএনপির প্রার্থীরা নির্বাচনের মাঠ গরম করলেও জোটগত কারণে মনোনয়ন অংকে অনিশ্চয়তার মধ্যে রয়েছে। সবার মুখে-মুখে এখন মনোনয়নয়ন প্রাপ্তি নিয়ে আ সম আবদুর রব এবং মেজর আবদুল মান্নানের আলোচনা।

প্রসঙ্গত, লক্ষ্মীপুর-৪ আসনে বর্তমান ভোটার ৩ লাখ ১০ হাজার ৮৪৭ জন। গত সংসদ নির্বাচনে ভোটার ছিল ২ লাখ ৬৬ হাজার ৭২৬ জন। সে হিসাবে এ আসনে গত পাঁচ বছরে ভোটার বেড়েছে ৪৪ হাজার ১২১ জন।

Add Image