লেভান্তের মাঠে পয়েন্ট খুইয়ে শিরোপার দৌড় থেকে ছিটকে গেল বার্সা

টিবিটি টিবিটি

স্পোর্টস ডেস্ক

প্রকাশিত: ৫:২৯ অপরাহ্ণ, মে ১২, ২০২১ | আপডেট: ৫:২৯:অপরাহ্ণ, মে ১২, ২০২১

লা লিগার ৩৬তম রাউন্ডে এসেও এখন পর্যন্ত মীমাংসা হয়নি শিরোপার। একদিন অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদ এগিয়ে তো অন্যদিন বার্সেলোনা; আবার একদিন পরেই রিয়াল মাদ্রিদ। তবে এখন পর্যন্ত পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থান ধরে রেখেছে অ্যাতলেতিকো। আর তাদের ঠিক পেছনেই নিঃশ্বাস ফেলছিল বার্সেলোনা। তবে লেভান্তের সঙ্গে ছয় গোলের ম্যাচে ৩-৩ গোলে ড্র করে শিরোপার দৌড় থেকে একমকম ছিটকেই গেল লিওনেল মেসির বার্সা।

গত রাউন্ডে বার্সেলোনা ও অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদের মধ্যকার ম্যাচটি ড্র হওয়ায় শিরোপা দৌড়ে এগিয়ে যাওর সুযোগ ছিল রিয়ালের সামনে। তবে সেভিয়ার সঙ্গে ঘরের মাঠে কোনো রকমে হার এড়িয়ে সেই সুযোগ হাতছাড়া তো করেই, বরং শিরোপার লড়াইয়ে নিজেদের টিকিয়ে রাখে রিয়াল।

গতরাতে লিগের ১৩ নম্বরে থাকা লেভান্তেকে হারাতে পারলেই শীর্ষে উঠে আসতো বার্সা। তবে সেই সুযোগটাও হাতছাড়া করল রোনাল্ড ক্যোমানের দল।

দুর্দান্ত পারফরম্যান্সে দুই গোলের লিড নিয়ে প্রথমার্ধ শেষের পর জেগেছিল সহজ জয়ের উজ্জ্বল সম্ভাবনা। কিন্তু লেভান্তের মাঠে বারবার পথ হারানোর ভীতি, সঙ্গে শিরোপা লড়াইয়ের প্রবল চাপ-দুইয়ে মিলিয়েই কিনা বিরতির পর একটু নড়ে গেল বার্সেলোনা। সেই সুযোগে অসাধারণভাবে ঘুরে দাঁড়াল মোরালেস-মার্টিরা। শ্বাসরুদ্ধকর লড়াইয়ে শেষ পর্যন্ত আর জয়ের দেখা পাওয়া হয়নি ব্লাউগ্রানাদের।

মূল্যবান দুটি পয়েন্ট হারালেও আপাতত লিগ টেবিলে দুইয়ে ফিরেছে বার্সেলোনা। ৩৬ ম্যাচে রোনাল্ড কুমানের দলের পয়েন্ট ৭৬। একটি করে ম্যাচ কম খেলেছে শিরোপা লড়াইয়ের অন্য দুই দল আতলেতিকো মাদ্রিদ ও রিয়াল। ৭৭ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে দিয়েগো সিমেওনের দল। ৭৫ পয়েন্ট নিয়ে তিনে নেমে গেছে জিনেদিন জিদানের দল।

লা লিগায় লেভান্তের বিপক্ষে বার্সেলোনা খেললে একটা ব্যাপার যেন নিশ্চিত, গোল পাবেই কাম্প নউয়ের দলটি। এ নিয়ে ৩০ ম্যাচেই তারা পেল জালের দেখা, মোট ৮৯টি। ম্যাচ প্রতি গোলের হিসেবে যা দ্বিতীয় সর্বোচ্চ; অন্তত ১৫ ম্যাচ খেলেছে এমন দলের বিপক্ষে এর চেয়ে ভালো গড় কেবল রায়ো ভায়োকানোর বিপক্ষে (৩.২)।

তবে এই দলটির মাঠে মুদ্রার উল্টো পিঠও দেখতে হয় বার্সেলোনার। লিগে গত তিন আসরে দুবারই এখানে হেরেছে মেসিরা। মাঝে ২০১৮-১৯ মৌসুমে জিতলেও সেবার কোপা দেল রের শেষ ষোলোর প্রথম লেগে হারে বার্সেলোনা।

প্রতিপক্ষের মাঠে ম্যাচের শুরু থেকেই চড়াও বার্সেলোনা। দুর্দান্ত আক্রমণের লেভান্তের রক্ষণের বেশ ভালোই পরীক্ষা নিচ্ছিলেন মেসিরা। ফলাফল আসে ম্যাচের ২৫তম মিনিটে। বাঁ প্রান্ত থেকে আলাবার ক্রস লেভান্তের ডিফেন্ডারের গায়ে লেগে দিক পাল্টায়। আর গিয়ে পড়ে ডি বক্সের ভেতরে থাকা লিওনেল মেসির কাছে। সেখান থেকে ভলিতে বল জালে জড়িয়ে দলকে লিড এনে দেন মেসি।

৩৪তম মিনিটে এসে উসমান দেম্বেলের অ্যাসিস্ট থেকে ব্যবধান ২-০ করেন পেদ্রি। এভাবেই আক্রমণে প্রতিপক্ষকে দিশেহারা করে দেয় বার্সা।

দ্বিতীয়ার্ধের ৫৭ থেকে ৫৯ এই দুই মিনিটে দুই গোল করে ম্যাচে ফেরে লেভান্তে। ৫৭তম মিনিটে জর্জ মিরামনের অ্যাসিস্ট থেকে গোল করে ব্যবধান ২-১ করেন গঞ্জালো মেইরো। আর এর মিনিট দুই পরে রজারের অ্যাসিস্ট থেকে লেভান্তেকে ম্যাচে সমতায় ফেরান হোসে মোরালেস।

গোটা ম্যাচ জুড়ে দুর্দান্ত খেলা উসমান দেম্বেলে বার্সাকে বেশি সময় পিছিয়ে থাকতে দেয়নি। ৬৪তম মিনিটে দুর্দান্ত এক গোলে বার্সাকে ৩-২ ব্যবধানে এগিয়ে নেন দেম্বেলে।

ম্যাচের ৮২তম মিনিটে গ্রিজম্যানকে তুলে ব্র্যথওয়েট আর দেম্বেলেকে তুলে সার্জিনো ডেস্টকে মাঠে নামায় বার্সা। রক্ষণকে শক্ত করতেই দেম্বেলের বদলি হিসেবে মাঠে নামেন ডেস্ট। তবে এর এক মিনিট পরে সার্জিও লেওনের গোলে আবারও সমতায় ফেরে লেভান্তে। আর শেষ পর্যন্ত ওই ৩-৩ গোলে ড্র নিয়েই মাঠ ছাড়ে দুই দল।