শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভায় সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থী রাহেল সরদার

প্রকাশিত: 9:23 PM, December 14, 2019 | আপডেট: 9:23:PM, December 14, 2019

নাম মোঃ রাহেল মিয়া সরদার। তিনি হবিগঞ্জ জেলার শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডস্থ বিরামচর গ্রামের সরদার বাড়ির মরহুম মনছুফ উল্লাহ সরদারের ছেলে। রাহেল সরদার লেখাপড়া থাকাকালেই ব্যবসায় যুক্ত হলেন। ব্যবসার পাশাপাশি তিনি নিজেকে সমাজসেবায় জড়িত রাখেন। তৃণমূল মানুষের পাশে থেকে সমাজসেবা করে আসছিলেন।

এরমধ্যে হবিগঞ্জ সদর উপজেলার ৮নং শায়েস্তাগঞ্জ ইউনিয়নের তিন ওয়ার্ডে নির্বাচন করে বিপুল ভোট পেয়ে মেম্বার নির্বাচিত হন। পরে শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভা হলে ৯নং ওয়ার্ড থেকে নির্বাচন করে তৃণমূল জনগণের ভোটে কমিশনার নির্বাচিত হলেন। সেই সাথে নির্বাচিত হন পৌর প্যানেল মেয়রও।

এ সময় থেকে তিনি পুরোদমে জনসেবায় নিজেকে উজার করে দেন। রাতদিন তৃণমূলের কল্যাণে কাজ করে যান। দায়িত্ব পান ৯নং ওয়ার্ড পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতির। দক্ষতার সাথে এ পদে তিনি ৭ বছর দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে পৌর আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতির দায়িত্বে রয়েছেন। দলের দুর্দিনে তিনি রাজপথে ছিলেন। এখনও দলীয় কর্মকান্ডে সক্রিয় অংশগ্রহণ আছে। শুধু তাই নয় তিনি শায়েস্তাগঞ্জ পুরানবাজার আঞ্চলিক অটোরিক্সা শ্রমিক সংগঠনের দুইবার সভাপতি ছিলেন।

তিনি ঐহিত্যবাহী শায়েস্তাগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির ৫ বারের অভিভাবক সদস্য। দায়িত্ব পালন করেছেন জেলা প্রতিবন্ধী উন্নয়ন সংস্থার সভাপতি ও সাবাসপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির অভিভাবক সদস্য পদেরও।

রাহেল মিয়া সরদার শায়েস্তাগঞ্জ ডিগ্রী কলেজ গভর্নিং বডি’র অভিভাবক সদস্য পদে ভোটে দুইবার নির্বাচিত হন। বর্তমানেও এ পদে দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়াও তিনি বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সাথে জড়িত থেকে সমাজ উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করছেন। স্থানীয় লোকজন তাকে একজন নিঃস্বার্থ সমাজসেবক হিসেবে জানেন। তৃণমূলের সমর্থন নিয়ে তিনি আগামী শায়েস্তাগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থী হওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।

আলাপকালে রাহেল মিয়া সরদার বলেন, মুক্তিযুদ্ধ শুরু হলে স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধাদের নানাভাবে সহযোগীতা করেছি। লোভ লালসা ত্যাগ করে সমাজ উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছি। লোকজন আমাকে ভালবাসেন। আমিও তাদেরকে মনেপ্রাণে ভালবাসি। তৃণমূলের ভালবাসায় আমি সিক্ত। সমাজসেবার মাধ্যমে বাকী জীবনটুকু অতিবাহিত করতে চাই।