শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে টিউশন ফি ছাড় দেয়ার সিদ্ধান্ত

প্রকাশিত: ৮:৫৪ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২২, ২০২০ | আপডেট: ৮:৫৪:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২২, ২০২০

করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) পরিস্থিতির মধ্যে টিউশন ফি আদায় সংক্রান্ত নতুন নিদের্শনা দিতে যাচ্ছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর (মাউশি)। চলতি মাসে এ সংক্রান্ত নির্দেশনা জারি করা হবে। আর্থিক সংকটে থাকা অভিভাবকদের সন্তানদের টিউশন ফি’র কিছু অংশ ছাড় দিয়ে পরিশোধ করার নির্দেশনা দেয়া হতে পারে বলে জানা গেছে।

তথ্যটি নিশ্চিত করে আজ বৃহস্পতিবার মাউশির মহাপরিচালক অধ্যাপক ড. সৈয়দ গোলাম ফারুক বলেন, ঢালাওভাবে কোনো নির্দেশনা নয়, বরং বাছাই করাদের এ সুবিধা দেয়া হবে। বিশেষ করে করোনার কারণে যে সব অভিভাবক আর্থিক সংকটে পড়েছেন, তাদের সন্তানদের টিউশন ফি আদায়ে কিছুটা ছাড় দিতে নির্দেশ দেয়া হবে।

রাজধানী ঢাকাসহ জেলা শহরের কিছু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে টিউশন ফি সংক্রান্ত বিষয়ে জটিলতার সৃষ্টি হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, এমন প্রতিষ্ঠান আছে প্রায় ২০ শতাংশ। সেখানে অনেক শিক্ষার্থী টিউশন ফি দিতে পারছে না। তাদের বিষয়টি বিবেচনা করে এ সংক্রান্ত একটি নির্দেশনা তৈরির কাজ শুরু করা হয়েছে এবং চলতি মাসেই এটি জারি করা হবে।

বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, দেশের বিভিন্ন বেসরকারি নামি-দামি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে চাপ সৃষ্টির মাধ্যমে টিউশন ফি আদায় করা হচ্ছে। অনলাইন পরীক্ষা নেয়ার কথা বলে টাকা পরিশোধ করতে বাধ্য করছে। যদি কেউ পরিশোধ করতে ব্যর্থ হয়, তাহলে তাকে পরবর্তী ক্লাসে উন্নীত করা হবে না বলেও হুমকি দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ বিষয়ে অভিভাবক ফোরামের সভাপতি জিয়াউল কবির দুলু বলেন, করোনার কারণে বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ৫০ শতাংশ টিউশন ফি মওকুফের দাবি জানিয়ে আসছি। আর্থিক সমস্যা থাকায় অনেকে ফি দিতে পারছেন না। কিন্তু স্কুল কর্তৃপক্ষ নানাভাবে চাপ সৃষ্টির মাধ্যমে বাড়তি ফি আদায় করার চেষ্টা করছে।