‘শিক্ষার উদ্দেশ্য শুধু সার্টিফিকেট অর্জন নয়’

প্রকাশিত: ৯:১৭ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৮, ২০১৯ | আপডেট: ৯:১৭:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৮, ২০১৯
ছবি: টিবিটি

শিক্ষার উদ্দেশ্য শুধু সার্টিফিকেট অর্জন নয়। মানষিকতার পরিবর্তন ঘটিয়ে নিজেকে যোগ্য করে গড়ে তোলাই শিক্ষার উদ্দেশ্য হওয়া উচিত। নারী শিক্ষায় দানবীর রণদা প্রসাদ সাহা যে ভুমিকা রেখে গেছেন তাতে বেগম রোকেয়ার কথা আসলে তার কথাও আসে। নারী শিক্ষার অগ্রযাাত্রায় দানবীর রণদা প্রসাদ সাহার প্রতিষ্ঠিত ভারতেশ্বরী হোমস, কুমুদিনী কলেজ আজও অগ্রদূত হিসেবে দাড়িয়ে আছে।

শুক্রবার বিকেলে মির্জাপুর রণদা নাট মন্দিরে এশিয়াখ্যাত কুমুদিনী হাসপাতালের প্রতিষ্ঠাতা দানবীর রণদা প্রসাদ সাহার ১২৩ তম জন্মজয়ন্তী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় বিশিষ্ঠ নাট্যকার ২১শে পদকপ্রাপ্ত মামুনুর রশিদ কথাগুলো বলেন।

রণদা প্রসাদের জন্মজয়ন্তী অনুষ্ঠানের কর্মসূচীর মধ্যে ছিলো প্রভাত ফেরী, রণদার প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ, শিশু কিশোরদের সাংস্কৃতিক প্রতিযোগীতা, মোমবাতি প্রজ্জলন, কেক কাটা ও আলোচনাসভা।

সকালে মির্জাপুর গ্রামবাসী রণদার জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে প্রভাত ফেরী বের করে। পরে কুমুদিনী হাসপাতালে রণদার প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ করা হয়।

বিকেলের আলোচনা সভায় কুমুদিনী কল্যান সংস্থার ব্যবস্থাপনা পরিচালক রাজিব প্রসাদ সাহা সভাপতিত্ব করেন। আলোচনায় অংশ নেন কুমুদিনী কল্যান সংস্থার পরিচালক মাহাবীর প্রতীক, উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়াররম্যান সরকার হিতেস চন্দ্র পুলক, মির্জাপুর পৌরসভার সাবেক মেয়র মোশারফ হোসেন মনি, উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি আবু আহমেদ, পৌর বিএনপির সভাপতি হজরত আলী মিঞা, জন্মজয়ন্তী উদযাপন কমিটির সদস্য সচিব নিরঞ্জন পাল, মির্জাপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সোহেল মোহসীন শিপন, বণিক সমিতির সভাপতি গোলাম ফারুক সিদ্দিকী। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জন্মজয়ন্তী উদযাপন কমিটির আহবায়ক দে সুধীর চন্দ্র।

এসময় ১২৩টি মোমবাতি প্রজ্জলন করেন শিশু কিশোর ও মির্জাপুর গ্রামবাসী এবং কেক কাটা হয়। পরে অতিথিবৃন্দ সাংস্কৃতিক প্রতিযোগীতায় বিজয়ী শিশু কিশোরদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন।