শিক্ষিকা হত্যা: স্বীকারোক্তিতে যুবলীগ নেতার নাম

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯:২৮ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১, ২০১৮ | আপডেট: ৯:২৮:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১, ২০১৮

শরীয়তপুরের জাজিরায় স্কুল শিক্ষিকা রুবিনা আক্তার রুমা হত্যায় গ্রেপ্তারকৃত মেহেদী হাসান তার স্বীকারোক্তিতে এক যুবলীগ নেতা জড়িত থাকার কথা পুলিশ জানিয়েছেন। রোববার শরীয়তপুর মুখ্য বিচারিক হাকিম নিজাম উদ্দিনের আদালতে ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন ওই আসামি। অন্যদিকে হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে জাজিরা উপজেলা যুবলীগের যুগ্ন আহবায়ক সাজ্জাদ হোসেন ওরফে কামাল মাদবর ওরফে তমি কামালকে গ্রেপ্তার করা হলেও তার জবানবন্দি এখনও পাওয়া যায়নি।

গত ২১ সেপ্টেম্বর বিকালে রুবিনা আকতার রুমা মধ্যরায়ের কান্দির নিজ বাড়ি থেকে জাজিরা সদরে যাওয়ার জন্য বের হন। তারপর থেকে তিনি নিখোঁজ থাকেন। এ ঘটনায় ২৩ সেপ্টেম্বর তার ভাই সামসুল হক মুন্সি জাজিরা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। পরে ২৫ সেপ্টেম্বর নিজ বাড়ির পাশে বাঁশঝাড়ে রুবিনার গলিত লাশ পাওয়া যায়।

২৬ সেপ্টেম্বর সামসুল হক মুন্সি বাদী হয়ে অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামি করে জাজিরা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরে এ ঘটনায় রুবিনার আপন ভগ্নিপতি যুবলীগ নেতা সাজ্জাদ হোসেন ওরফে কামাল মাদবর ওরফে তমি কামাল ও কামালের ভাগনে মেহেদী হাসানকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা জাজিরা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) নাসির উদ্দীন সেক বলেন, রুবিনা হত্যার সঙ্গে জড়িত দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। এর মধ্যে মেহেদী হাসান আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

এ প্রসঙ্গে এই পুলিশ কর্মকর্তা আরো বলেন, স্বীকারোক্তিতে মেহেদী দাবি করেছেন, তমি কামালের নির্দেশে এ হত্যাকাণ্ড হয়েছে।

অন্যদিকে গ্রেপ্তারকৃত অপর আসামি যুবলীগ নেতা সাজ্জাদ হোসেন ওরফে কামাল মাদবর ওরফে তমি কামালকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ১০ দিনের রিমান্ড চেয়েছে পুলিশ। আগামী আগামী ৪ অক্টোবর তার রিমান্ড শুনানির দিন ধার্য করেছেন আদালত।