শুক্রবার ছাড়া তাজমহলে পড়া যাবে না নমাজ, ভারতজুড়ে সমালোচনার ঝড়

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ৭:১৩ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৫, ২০১৮ | আপডেট: ৭:১৩:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৫, ২০১৮

ফের বিতর্কের কেন্দ্রে ঐতিহাসিক স্মৃতিসৌধ তাজমহল। সম্প্রতি দেশের প্রত্নতাত্ত্বিক বিভাগ জানিয়েছে তাজমহলে রোজ নমাজ পড়তে পারবে না মুসলিমরা। শুধুমাত্র শুক্রবার তারা এই অনুমতি পাবে। কিন্তু প্রত্নতাত্ত্বিক বিভাগের এই নির্দেশ মানতে রাজি নয় মুসলিমরা। এই নিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক।

তবে প্রত্নতাত্ত্বিক বিভাগের তরফে জানানো হয়েছে, তারা শুধুমাত্র সুপ্রিম কোর্টের আদেশ বাস্তবায়িত করেছে। এর বেশি কিছু নয়।

এবছর জুলাই মাসে সুপ্রিম কোর্ট নির্দেশ দিয়েছিল, বহিরাগতরা কেউ শুক্রবারের নমাজ তাজমহলে পড়তে পারবে না। তাজমহলের সুরক্ষার জন্যই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছিল সুপ্রিম কোর্ট। বিচারপতি এ কে সিকরি ও বিচারপতি অশোক ভূষণের বেঞ্চ তখন জানিয়েছিল, নমাজ পড়তে হলে আগ্রার অন্য যে কোনও মসজিদে যাওয়া যেতে পারে। কিন্তু তার জন্য তাজমহলের ভিতর ঢোকার কোনও দরকার নেই। অন্য কোনও জায়গা থেকে রীতি পালন করা যেতে পারে। কারণ তাজমহল পৃথিবীর সপ্তম আশ্চর্য। এটি ঐতিহাসিক সমাধি। সুতরাং সেই ঐতিহ্য সংরক্ষণের কথাও মাথায় রাখতে হবে।

তবে শুক্রবার যেহেতু তাজমহল বন্ধ থাকে, সেহেতু ওইদিন নমাজ পড়া যেতে পারে বলে অনুমতি দিয়েছে প্রত্নতাত্ত্বিক বিভাগ। কিন্তু তাই বলে বহিরাগতরা এক্ষেত্রেও তাজমহলে প্রবেশ করতে পারবে না, শুধুমাত্র স্থানীয়রাই অনুমতি পাবে। অন্যদিন টিকিট কেটে তাজমহলে ঢুকতে হবে। কিন্তু শুক্রবার টিকিট না কেটে ১২টা থেকে ২টো পর্যন্ত ঢোকা যাবে তাজমহলে। শুধুমাত্র নমাজ পড়ার জন্যই এই বন্দোবস্ত।

নতুন এই অর্ডারে বেশ অবাক ইমাম সৈয়দ শাদিক আলি। তিনি বহুবছর ধরে এই মসজিদে নমাজ পড়িয়ে আসছেন। বিষয়টি নিয়ে অসন্তষ্টু তাজমহল ইন্তিজামিনিয়া কমিটির প্রেসিডেন্ট সৈয়দ ইব্রাহিম হুসেন জাইদি। গোটা বিষয়ের জন্য তিনি সরাসরি কেন্দ্রকে দুষেছেন। তাঁর মতে, ‘অমুসলিম’ মানসিকতার জন্যই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র।