শ্রীলংকার ‘তুরুপের তাস’ মালিঙ্গা?

প্রকাশিত: ৮:৫৮ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৮ | আপডেট: ৮:৫৮:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৮

শ্রীলংকার হয়ে লাসিথ মালিঙ্গা সর্বশেষ ম্যাচ খেলেছেন ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে। লংকানদের হয়ে ২০৪ ম্যাচে নিয়েছেন ৩০১টি উইকেট। দলে ফিরেছেন এক বছর পর। যার শেষ দেখে নিয়েছিলেন অনেকে সেই মালিঙ্গা ঘরোয়া লিগে দারুণ পারফর্ম করে ফিরেছেন সংবাদ মাধ্যমের শিরোনাম হয়ে। আর শ্রীলংকার কোচ চন্দিকা হাথুরুসিংহে বলছেন, সমীকরণ অনুযায়ী মালিঙ্গাকে তাদের খুব দরকার এই টুর্নামেন্টে।

দীর্ঘদিন ইনজুরির কারণে দলের বাইরে ছিলেন মালিঙ্গা। সর্বশেষ আইপিএলে কাজ করেছেন মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের বোলিং পরামর্শক হিসেবে। এরপর ঘরোয়া লিগে খেলা চালিয়ে গেলেও তার দলে ফেরার কথা ওভাবে মাথায় আনেননি অনেকেই। কিন্তু মালিঙ্গা ফিটনেস টেস্টে উত্তীর্ণ হয়েই দলে এসেছেন। করেছেন ভালো বোলিং। তাই তিনি বাংলাদেশের জন্য মাথা ব্যথার কারণ। বাংলাদেশ সাবেক কোচ মালিঙ্গার মধ্যে কি এমন দেখলেন, যে তাকে সাবেক শিষ্যদের বিরুদ্ধে দলে ফিরিয়েছেন? সেই প্রশ্নের উত্তর মেলার অপেক্ষা এখন।

উত্তর অবশ্য কতকটা লংকান কোচ হাথুরুই দিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি এশিয়া কাপে আমাদের পরিকল্পনার সঙ্গে মালিঙ্গা খুবই মানানসই। সে বিশ্বের সেরা ডেথ ওভার বোলারদের একজন। তার খেলা শেষ কিছু ম্যাচে বল হাতে মালিঙ্গাও দৃষ্টি আকর্ষণ করার মতো কিছু করেছে।’

মালিঙ্গা যদি তার সেরাটা দিয়ে বল করতে পারেন তবে যে কোন দলের জন্য বাড়তি চিন্তার তিনি। প্রতি উইকেটের পেছনে গড়ে মাত্র ২৮.৯২ রান খরচ করেছেন মালিঙ্গা। ওভার প্রতি দিয়েছেন মোটে ৫.৩২ রান। এছাড়া এশিয়া কাপের মতো আসরে মালিঙ্গার অন্তর্ভুক্তি বিশ্বকাপে অংশ নিতে যাওয়া দলগুলোর জন্যও চিন্তার কারণ হবে। এর আগে তিনটি বিশ্বকাপ খেলে ২২ ম্যাচে তিনি ৪৩ উইকেট নিয়েছেন।

লংকান দলে অবশ্য মালিঙ্গা ফেরার স্বস্তির সঙ্গে চান্দিমাল এবং গুনাথিলাকার ইনজুরি কিছুটা অস্বস্তি ছড়িয়েছে। তবে নিরোশান ডিকভেলা এবং সিহান জয়সুরিয়াকে নিয়ে ভালো করার ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী তারা। এছাড়া প্রতিপক্ষকে সহজ করে দেখছেন না বলে জানিয়েছেন লংকান কোচ। হাথুরু বলেন, ‘আমরা কোন দলকে সহজভাবে নিচ্ছি না। তবে কিছু বিষয়ের দিকে আলাদা নজর দিচ্ছি। যেমন-শিশির এবং শুষ্ক উইকেট। যেটাকে আমি বড় প্রতিপক্ষ মনে করছি।’