‘শ্রেষ্ঠ সংগঠন’ হিসেবে মমতা’র ১২তম জাতীয় পুরষ্কার লাভ

ওয়াহিদুল ইসলাম ওয়াহিদুল ইসলাম

জাককানইবি প্রতিনিধি

প্রকাশিত: 6:37 PM, July 11, 2019 | আপডেট: 6:37:PM, July 11, 2019
ছবি: টিবিটি

পরিবার–পরিকল্পনা এবং মা ও শিশু স্বাস্থ্য সেবা কার্যক্রমে অসামান্য অবদানের জন্য ২০১৮-১৯ সালে জাতীয় পর্যায়ে ‘শ্রেষ্ঠ বেসরকারি সংস্থার (ক্লিনিক)’ পুরস্কার অর্জন করেছে চট্টগ্রামের বেসরকারি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা মমতা। মমতা এ পর্যন্ত মোট ১২ বার এ খাতে জাতীয় পুরষ্কারে ভূষিত হয়েছে।

বৃহষ্পতিবার রাজধানী ঢাকার কৃষিবিদ ইন্সটিটিউশন মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস ২০১৯ উদযাপন উপলক্ষে সরকারের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় এর উদ্যোগে অনুষ্ঠিত জাতীয় অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রনালয়ের মন্ত্রী জাহিদ মালিক এমপির কাছ থেকে পুরস্কার গ্রহণ করেন মমতার প্রধান নির্বাহী আলহাজ্ব রফিক আহমদ।

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রনালয় এর স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব শেখ ইউসুফ হারুন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন সাবেক মন্ত্রী ও বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ড. আ.ফ.ম রুহুল হক।

সম্মানিত অতিথি ছিলেন ইউএনঅএফপিএ বাংলাদেশ এর রিপ্রেজেনটেটি ড. আসা টোরকেলসন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এর মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ। অনুষ্ঠানে স্বাগত ভাষণ প্রদান করেন পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কাজী মোস্তফা সরোয়ার এবং ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর এর আইইএম ইউনিট পরিচালক ড. আশরাফুন্নেছা।

এদিকে বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস ২০১৯ উপলক্ষে চট্টগ্রাম জেলা শিল্পকলা একাডেমী মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম বিভাগীয় এবং চট্টগ্রাম জেলা পর্যায়েও শ্রেষ্ঠ বেসরকারী সংস্থার (ক্লিনিক) পুরস্কার লাভ করেছে মমতা।

চট্টগ্রাম বিভাগীয় ও জেলা পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয় এর ব্যবস্থাপনায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) কামাল হোসেন এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) ও যুগ্ন সচিব মো. নুরুল আজম নিজামী’র হাত থেকে বিভাগীয় ও জেলা পর্যায়ের শ্রেষ্ঠ সংগঠন (ক্লিনিক) এর পুরষ্কার গ্রহন করেন যথাক্রমে মমতার সিনিয়র পরিচালক (সমন্বয়) স্বপ্না তালুকদার, মমতা মাতৃসদন লালখান বাজার এর কনসাল্টেন্ট ডা: মোর্শেদা বেগম।

উল্লেখ্য, অতীতে ১৯৯১, ১৯৯৯, ২০০০, ২০০২, ২০০৭, ২০১০, ২০১২, ২০১৩, ২০১৬, ২০১৭ এবং ২০১৮ সালেও পরিবার পরিকল্পনা এবং মা ও শিশু স্বাস্থ্য কর্মসূচিতে প্রশংসনীয় অবদানের জন্য বিশ্ব জনসংখ্যা দিবসে বেসরকারি সংগঠন হিসেবে “শ্রেষ্ঠ সংগঠন” এর পুরস্কার অর্জন করেছিল মমতা।

জাতীয়,বিভাগীয় ও জেলা পর্যায়ে বেসরকারী সংস্থা হিসেবে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনের অভিমত প্রকাশ করতে গিয়ে মমতা’র প্রধান নির্বাহী রফিক আহমদ বলেন, মমতা’র এই স্বীকৃতি আমাদের নিবেদিত দক্ষ পরিচালনা, মমতার সকল ডাক্তার, স্বাস্থ্যকর্মীসহ মমতার সকল স্তরের কর্মকর্তা-কর্মীবৃন্দের আন্তরিক পরিশ্রমের ফসল।

তারা প্রত্যেকেই অনগ্রসর জনগোষ্ঠীকে মানবিক মূল্যবোধের বিবেচনায় সেবা দিয়ে আসছে। এই পুরষ্কার শুধু সংস্থা হিসেবে মমতা’র একার নয় বরং এটি পুরো চট্টগ্রামের অর্জন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জাহিদ মালিক বলেন. জনগনের স্বাস্থ্য সেবার উন্নয়নে সরকার নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে যার ফলশ্রুতিতে আমাদের দেশে মা ও শিশু মৃত্যুর হাম কমে এসেছে। এর জন্য সরকারের পাশাপাশি বেসরকারী সংগঠন সমুহ কাজ করছে যা আমাদের জন্য ইতিবাচক হিসেবে পরিগনিত। অনুষ্ঠানে সরকারী ও বেসরকারী পর্যায়ের বিভিন্ন স্বাস্থ্য কর্মীদের পুরষ্কৃত করা হয়।