‘সবাইকে সবার ফেসবুক পোস্টে কমেন্ট করার সুযোগ দেওয়া ঠিক হয়নি’

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৮:৫৫ অপরাহ্ণ, মে ১০, ২০২১ | আপডেট: ৮:৫৫:অপরাহ্ণ, মে ১০, ২০২১

সবাইকে সবার ফেসবুক পোস্টে ‘কমেন্ট’ করার সুযোগ দেয়া ঠিক হয়নি। ইউজারের ব্যক্তিগত ‘রেটিং পয়েন্ট’-এর ভিত্তিতে কমেন্ট অপশন ‘রিওয়ার্ড’ হিসেবে দিলে ভাল হতো। আবার সেই ‘রেটিং পয়েন্ট’ কমে গেলে ‘কমেন্ট অপশন’ বন্ধ হওয়া দরকার ছিল।

বিষয়টি অনেকটা ‘ভেরিফাইড ব্লু বাটন’-এর মত। এরকম হলে কারো কমেন্ট করার পারমিশন আছে কি নাই – এটা দেখেই তার আচার-আচরণ ও ভদ্রতাসূচক পাওয়া যেত।

অনেকেই হয়তো আমার সাথে একমত হবেন যে, আজকাল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেক ইউজার নির্লজ্জের মত অন্যের পোস্টে আক্রমণাত্মক কমেন্ট করছে যা অভদ্রতা, অসভ্যতা এবং অপরাধমূলকও বটে।

এসব বাজে কমেন্ট অনেকের আত্মার প্রশান্তি নষ্ট করছে। সেই সাথে ধর্ম, বর্ণ ও গোত্রের মাঝে বিভেদের দেয়াল সৃষ্টি করছে। এতে বিব্রত হচ্ছে অনেকেই। সেলিব্রিটি অথবা নারীরাই শিকার হচ্ছে বেশি। পরিচিত অনেক সেলিব্রিটি-দের দেখেছি যারা অনেক আগে থেকেই কমেন্ট পড়া বাদ দিয়েছে।

কিছু কিছু কমেন্ট দেখলে মনে প্রশ্ন জাগে- এই কমেন্টদাতা নিরক্ষর থাকলে কি পৃথিবীর খুব ক্ষতি হতো? কি তার শব্দ চয়ন! কি তার ভাষা! এসব পড়লে মনে হয় তার অর্জিত সব বিদ্যা-বুদ্ধি মানুষকে অপমান করার জন্য কিংবা নিখুঁতভাবে কষ্ট দেয়ার জন্যই অর্জিত হয়েছে।

কারো মা, কারো স্ত্রী, কারো স্বামী, কারো শরীরের কোন অঙ্গপ্রত্যঙ্গ, কারো বর্ণ, কারো ধর্ম, কারো ব্যক্তিগত জীবন, কারো ভালোবাসার বহিঃপ্রকাশ, কারো অর্জন, কারো প্রত্যাশা, কারো ব্যক্তিগত মতামত…. এগুলোর কোন কিছুই ঐ দুষ্ট লোকদের কমেন্ট থেকে রেহাই পাচ্ছে না।

দুঃখ ভারাক্রান্ত মনে অনেকেই ‘কমেন্ট অপশন’ সেলেক্টিভ করেছে। অনেকেই ফেসবুক প্রাইভেসির মুখে মাস্ক লাগিয়ে করোনারূপী কিছু টক্সিক পিউপিল থেকে নিজেকে দূরে রেখেছে। এটি এমন একটি সমাজ যেখানে অনেকে অন্যের ব্যক্তি স্বাধীনতাকে বেয়াদবি কিংবা বেলাল্লাপনা মনে করে।

অন্যকে রোস্টিং করা কিংবা বুলিং করা যেখানে স্মার্টনেস। সামাজিক এই ব্যাধির লাগাম টেনে ধরা প্রায় অসম্ভব হয়ে পরছে। মোদ্দাকথাঃ সাইবার আইনের কঠোর প্রয়োগ এবং শিক্ষা প্রতিিষ্ঠান ও পারিবারে ‘ম্যানার এন্ড এটিকেট’ শিক্ষার বিকল্প নেই। আর ‘কমেন্ট অপশন’ সেলেক্টিভ করার প্রস্তাব তো রইলই।

– অ্যন্টি টেররিজম ইউনিটের এসপি সানি সানোয়ারের ফেসবুক পোস্ট।