সর্বস্তরে বাংলা ভাষা প্রচলনের আইন করেছিলেন এরশাদ: জিএম কাদের

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯:০৫ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২১, ২০২১ | আপডেট: ৯:০৫:অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২১, ২০২১

জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদই সর্বস্তরে বাংলাভাষা প্রচলনের আইন করেছিলেন বলে মন্তব্য করেছেন দলের চেয়ারম্যান ও সংসদে বিরোধী দলীয় উপনেতা জি এম কাদের।

তিনি বলেছেন, অনেক ক্ষেত্রেই বাংলা ভাষার প্রচলন বাস্তবায়ন হলেও তা উচ্চ আদালতে পুরোপুরি বাংলা প্রচলন করতে হবে।
রোববার (২১ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যানের বনানীর রাজনৈতিক কার্যালয় মিলনায়তনে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

কাদের আরও বলেন, কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার ডিজাইন অনুযায়ী তৈরি করে ভাষা শহীদদের প্রতি গভীর কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছিলেন হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। একুশের ধারাবাহিকতায় মুক্তির জন্য স্বাধীনতা সংগ্রাম হয়েছিল। মুক্তিযুদ্ধে আমরা স্বাধীনতা পেয়েছি, কিন্তু এখনও আমরা মুক্তি পাইনি।

তিনি বলেন, ভাষা আন্দোলন আমাদের অন্যায়-অবিচারের কাছে মাথা নত না করে প্রতিবাদ করতে শিক্ষা দেয়। তাই জাতীয় পার্টি প্রতিটি অন্যায়-অবিচারের বিরুদ্ধে দেশের মানুষের পক্ষে আপসহীনভাবে প্রতিবাদ করবে। দেশ ও মানুষের অধিকারের প্রশ্নে জাতীয় পার্টি কখনোই আপস করবে না। নির্ভয়ে গণমানুষের অধিকার আদায়ের সংগ্রামে জাতীয় পার্টি সব সময় সামনের সারিতে থাকবে। গণমানুষের মুক্তি ও অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য বাংলাদেশ গড়বে জাতীয় পার্টি।
তিনি বলেন, দেশের মানুষ সকল বৈষম্য থেকে মুক্তি চায়। ন্যায়বিচার ভিত্তিক শাসন ব্যবস্থা ফিরে পেতে চায়, আইনের শাসন চায় দেশের মানুষ।

মাতৃভাষা দিবসের আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার, কাজী ফিরোজ রশীদ, প্রেসিডিয়াম সদস্য ও অতিরিক্ত মহাসচিব এডভোকেট শেখ মুহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম, প্রেসিডিয়াম সদস্য ও জাতীয় সংসদের বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ মো. মসিউর রহমান রাঙ্গা এমপি, প্রেসিডিয়াম সদস্য এস.এম. ফয়সল চিশতী, মীর আব্দুস সবুর আসুদ।

আলোচনার সভার আগে ও পরে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা ও সাংস্কৃতিক পার্টির আহ্বায়ক শেরিফা কাদেরের তত্ত্বাবধানে এবং সদস্য সচিব আলাউদ্দিন আহমেদের উপস্থাপনায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করেন জাতীয় সাংস্কৃতিক পার্টির সদস্যরা। এসময় ভাষা শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানিয়ে কবিতা আবৃত্তি এবং দেশের গান পরিবেশন করা হয়।

সূত্র: বাসস