সাকিবের ‘ফেরা’ এবং যা বলছেন বাংলাদেশ কোচ

টিবিটি টিবিটি

স্পোর্টস ডেস্ক

প্রকাশিত: ৮:৪৩ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১২, ২০২০ | আপডেট: ৮:৪৩:অপরাহ্ণ, আগস্ট ১২, ২০২০

অক্টোবরে শ্রীলঙ্কা সফরে সাকিব আল হাসানকে দলে দেখতে চান বাংলাদেশ জাতীয় দলের কোচ রাসেল ডমিঙ্গো। তবে নিষেধাজ্ঞায় থাকা এ ক্রিকেটারকে যথাযথ প্রক্রিয়ায় দলে ফেরাতে চান ডমিঙ্গো।

জুয়াড়ির কাছ থেকে পাওয়া তথ্য গোপন করায় গত অক্টোবরে এক বছরের জন্য আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হন সাকিব। নিষেধাজ্ঞায় এ থাকা ক্রিকেটার মাঠে ফিরতে পারবেন আগামী ২৯ অক্টোবর।

সাকিবের ফেরার মঞ্চ হতে পারে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের শ্রীলঙ্কা সফর। লঙ্কানদের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ দিয়ে পুনর্জন্ম হতে পারে প্রাক্তন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের। তবে তার আগে ফিটনেস পরীক্ষায় উতরাতে হবে সাকিবকে। আর করোনাভাইরাস ভাইরাস পরীক্ষার নিয়মিত ব্যাপারটা তো আছেই।

কুড়ি ওভারের সিরিজ নিয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড ও শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড সমঝোতায় পৌঁছেছে। অনিশ্চয়তা চলছে টেস্ট সিরিজ নিয়ে। সিরিজ দুই নাকি তিন ম্যাচের হবে তা নিশ্চিত হওয়ার কথা কাল-পরশুর মধ্যেই। তবে সিরিজ যে কয়টি ম্যাচেরই হোক না কেন, টেস্টে সাকিবের খেলার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে।

সাকিব অবশ্য মাঠে ফেরার মানসিক প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছেন। আগামী মাসে সাভারের বিকেএসপিতে অনুশীলন শুরু করার কথা রয়েছে। এ সময় বাংলাদেশ দলও অনুশীলন করবে শ্রীলঙ্কা সফরের জন্য। নিষেধাজ্ঞার কারণে দলের সঙ্গে যোগ দিতে পারছেন না তিনি। আপাতত ক্রিকেটাররা ব্যক্তিগতভাবে অনুশীলন করছেন।

সাকিবকে অবশ্য খুব বেশিদিন মিস করতে হয়নি বাংলাদেশ দলকে। করোনাভাইরাস ও আন্তর্জাতিক বিরতি মিলিয়ে ছয় মাস ধরে মাঠে নেই টাইগাররা। সেই হিসেবে তার অনুপস্থিতি দলে খুব প্রভাবও ফেলেনি। এনিয়ে বাংলাদেশ কোচ রাসেল ডমিঙ্গো বলেছেন, ‘আমার মনে হয় সাকিব বাইরে থাকার প্রভাব দলে খুব একটা পড়েনি। আমাদের পুরো দলই ছয়-সাত মাস ধরে মাঠের বাইরে আছে।’

সাকিবের ফেরা নিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকান কোচ আরো বলেছেন, ‘আমরা শতভাগ ফিট খেলোয়াড়দের চাচ্ছি। প্রত্যেকের জন্য ফিটনেসের একটা মানদণ্ড আছে। সাকিবকেও এই প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যেতে হবে। তবে ২৯ অক্টোবরের আগে তার ফেরা হচ্ছে না। এরপর নির্বাচকদের সঙ্গে আলোচনা