সাপাহারে শ্রমিক ইউনিয়নের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১১

প্রকাশিত: ৯:১৯ অপরাহ্ণ, মে ১৮, ২০২১ | আপডেট: ৯:১৯:অপরাহ্ণ, মে ১৮, ২০২১

সাপাহার (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর সাপাহারে মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের দু’টি গ্রুপের মধ্যে সৃষ্ট সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ১১জন গুরুতর আহত হয়ে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছেন। মঙ্গলবার দুপুর ২টার দিকে সাপাহার সিন্ডবি ডাকবাংলো মোড়ে সংঘর্ষের ঘটনাটি ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, আমের বাণিজ্যিক রাজধানী নামে খ্যাত নওগাঁর সাপাহারে টোল আদায়ের টাকা ভাগাভাগী নিয়ে নওগাঁ জেলা ট্রাক, লরি ও ক্যাভাড ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়ন (২৬৫০)ও (২৬৫৮) দু’টি গ্রুপ এর মধ্যে চরম দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। সামনে আমকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট দ্বন্দ্ব নিরসনের লক্ষে ঘটনার দিন দু’টি গ্রুপের নেতা কর্মীগন সাপাহার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসির) ডাকে সাড়া দিয়ে দুপুর ১২টার দিকে থানা চত্বরে আলোচনায় বসে। উভয় পক্ষ দ্বয়ের মধ্যে আলোচনা শেষে বিষয়টি পূর্ণ মিমাংসার জন্য সন্ধ্যা ৭টার দিকে আবারো থানায় বসার কথা বলে বেলা ৩টার দিকে উভয় পক্ষ দুপুরের খাবার খাওয়ার জন্য স্ব-স্ব বাড়ীর দিকে রওয়ানা হন। এরই মধ্যে ২৬৫০গ্রুপের সভাপতি মহরম আলী তার দলবল নিয়ে উপজেলার গোডাউন পাড়ায় তার বাসায় যাওয়ার পথে উক্ত স্থানে ২৬৫৮এর লোকজন তাদের পথ রোধ করে এলোপাথাড়ী মার পিট করতে থাকে।

এসময় উভয় পক্ষদ্বয়ের মধ্যে তুমুল সংঘর্ষ শুরু হলে উভয় পক্ষের আলী হাসান (২৮) টোঁটাবিদ্ধ ও আব্দুস সালাম (৫০) এর মাথা ফেটে গুরুতর আহত হয়ে পড়েন, এছাড়া মহরম আলী, আয়ুব আলী, মাহবুবুর রহমান, তারজুল ইসলাম, রাসেল, মিজানুর রহমান, সোহেল, লুৎফর রহমান গুরুতর আহত হন।

এর পর তড়িঘড়ি করে আহতদের স্থানীয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এলে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে উন্নত চিকিৎসার জন্য আলী হাসান ও আব্দুর সালামকে রাজশাহী মেডিক্যেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়।

এবিষয়ে সাপাহার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) তারেকুর রহমানের সাথে কথা হলে তিনি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন এবং চারজন আহত হয়েছেন বলে জানান। তবে সৃষ্ট ঘটনার জন্য ক্ষতিগ্রস্থগন থানায় মামলা দিলে তিনি মামলা গ্রহণ করবেন বলে জানিয়েছেন। বর্তমানে ঘটনাস্থল ও হাসপাহাল চত্বরে পুলিশ মোতায়েন থাকতে দেখা গেছে বলে এলাকাবাসী জানিয়েছেন।