‘অনুতপ্ত সাব্বির’, তবে একটি বিষয় স্বীকার করেননি

টিবিটি টিবিটি

স্পোর্টস ডেস্ক

প্রকাশিত: ৩:৩৪ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১, ২০১৮ | আপডেট: ৪:১১:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১, ২০১৮

গত তিন বছরে কিছু ক্রিকেটারের জন্য কলঙ্কিত হয় দেশের ক্রিকেট। তাদের মধ্যে অন্যতম তারকা ক্রিকেটার সাব্বির রহমান রুম্মন। একের পর এক শৃঙ্খলা ভঙ্গ করে যাওয়া সাব্বির রহমান এবং সম্প্রতি স্ত্রীর করা যৌতুকের মামলায় অভিযুক্ত মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতকে শনিবার তলব করে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) ডিসিপ্লিনারি কমিটি।

এদিন বিসিবির পরিচালক এবং শৃঙ্খলা কমিটির অন্যতম সদস্য ইসমাইল হায়দার মল্লিক বলেন, ডিসিপ্লিনারির কমিটিতে আজ দুটি শুনানি ছিল। সাব্বিরকে ছয় মাস আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ করার জন্য বোর্ডপ্রধানকে সুপারিশ করব।

যৌতুক মামলায় অভিযুক্ত অলরাউন্ডার মোসাদ্দেক হোসন সৈকত প্রসঙ্গে বিসিবির শৃঙ্খলা কমিটির এ সদস্য বলেন, মোসাদ্দেকেরটা পারিবারিক মামলা। বিচার-বিবেচনা করে আমরা তাকে নির্দেশনা দিয়েছি। তাকে সাবধান করা হয়েছে। ভবিষ্যতে সে যাতে নিজেকে সংযত করে চলে, এ বিষয়ে বলা হয়েছে। এটা যেহেতু বিচারাধীন বিষয়। কোর্ট থেকে যা বলা হবে, সেটাই তার ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে।

সম্প্রতি ফেসবুক লাইভে নিজেকে নাসিরের বান্ধবী দাবি করে এক তরুণী বেফাস মন্তব্য করেন। বিষয়টি চাউর হওয়ার পর নড়েচড়ে বসে বিসিবি। তাকেও তলব করার কথা বিসিবিতে। এ ব্যাপারে বিসিবির পরিচালক মল্লিক বলেন, নাসিরের বিষয়ে কোনো শুনানি হয়নি। ভবিষ্যতে তাকে ডাকা হতে পারে তকে। তবে সে ইনজুরির কারণে এমনিতেই এখন খেলার বাইরে আছে। বিসিবির শুনানিতে সাব্বিরের বক্তব্য কী ছিল জানতে চাইলে মল্লিক বলেন, সে অনুতপ্ত। সে ভবিষ্যতে এ রকম কিছু করবে না বলে প্রতিজ্ঞা করেছে। সে অনেক কিছু স্বীকারও করেছে।

মূলত যে কারণে নিষিদ্ধ হলেন সাব্বির সে বিষটি বিষয়টি স্বীকার করেননি। মল্লিকের ভাষায়, ‘সে বলেছে হ্যাক হয়েছিলো। বাকি কার্যকলাপের বিষয়ে সে কিছু বিষয় স্বীকার করেছে। ওই বিষয়ে তাকে নির্দেশনাও দেয়া হয়েছে।’

এর আগেও সাব্বিরকে শৃঙ্খলা ভঙ্গের কারণে শাস্তি দেয়া হয়েছিল, কিন্তু সে শোধরায়নি। ফের অপরাধ করায় তাকে মাত্র ৬ মাস নিষিদ্ধ করা হলো? এমন প্রশ্নে মল্লিক বলেন, কম কীভাবে হয়! ছয় মাস আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ। প্রতিটি খেলোয়াড়ের স্বপ্ন থাকে। সে কিন্তু এখনো ঘরোয়া ক্রিকেট খেলতে পারেনি।