সালমান খানের ঘোড়া কিনতে গিয়ে সর্বস্ব খোয়ালেন নারী

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ৮:৪৮ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০২১ | আপডেট: ৮:৪৮:অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০২১

লিউডের ‘ভাইজান’ খ্যাত সালমান খানের প্রিয় ঘোড়া বিক্রি হবে এমন তথ্য পান এক নারী ভক্ত। জেনেই রাজি হয়ে রাজি হয়ে যান রাজস্থানের বাসিন্দা সন্তোষ ভাটি নামে এক নারী সালমানের এক নারী ভক্ত।

কিন্তু ঘোড়ার দেখা তো মেলেনি, উল্টো ১২ লাখ রুপি প্রতারকদের কাছে খুইয়েছেন ওই নারী।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমসূত্রে জানা গেছে, রাজস্থানের যোধপুরের একজন নারী ঠিক করেছিলেন ঘোড়া কিনবেন। সেই সূত্রেই তার দেখা হয়েছিল নির্ভয় সিং, রাজপ্রীত এবং আরেকজন ব্যক্তির সঙ্গে। তৃতীয় ব্যক্তির নাম জানেন না ওই নারী। তিনজনে মিলে তাকে একটি ছবি দেখান। ছবিতে ঘোড়ার উপরে বসেছিলেন সালমান খান।

তিন প্রতারক ওই মহিলাকে জানান, সালমান নিজের প্রিয় ঘোড়াটি বিক্রি করবেন। আর তিনি যদি তা কিনে নেন তাহলে লাভবান হবেন। কারণ সালমান খানের ঘোড়া তিনি দ্বিগুন দামে আবার বিক্রি করতে পারবেন। এই টোপেই ফেসে যান সন্তোষ ভাটি নামের ওই মহিলা। খুশি হয়ে প্রতারকদের নগদ ১১ লাখ রুপি দিয়ে দেন তিনি। পরে আরও ১ লাখ দেন চেক মারফত।

তবে ওই নারীর সব আশার গুড়ে বালি যায়। তিনি যে প্রতারিত হয়েছেন, তা বুঝতে পারেন ঘোড়াটি গ্রহণ করার দিন। ঘোড়াটি নিতে তাকে নির্দিষ্ট জায়গায় যেতে বলা হয়েছিল। সেখানে গিয়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করার পরও কারও দেখা মেলেনি। তখনই নিজের ভুল বুঝতে পারেন ওই মহিলা।

প্রথমে থানায় প্রতারণার অভিযোগ জানিয়েছিলেন সন্তোষ ভাটি। কিন্তু তাতে কোনও ফল মেলেনি। পরে উপযুক্ত তদন্তের দাবিতে রাজস্থান হাই কোর্টের দ্বারস্থ হন তিনি। মহিলার আবেদন খারিজ করে দেন বিচারপতি। তবে তাকে নিজের অভিযোগ স্থানীয় থানার ডেপুটি কমিশনারকে জানাতে বলা হয়। আর ডেপুটি কমিশনারকেও বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখার পরামর্শ দেন আদালত। আদালতে পুলিশের পক্ষ থেকে আইনজীবী জানান, যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়ে সন্তোষ ভাটির মামলাটি দেখা হচ্ছে। প্রতারকদের সন্ধান পেতে পুলিশ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।