সিএমপি কমিশনারকে নিয়ে বিভ্রান্তিমূলক স্ট্যাটাস, আটক ‘জাপা নেতা’

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯:০৭ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ২২, ২০১৯ | আপডেট: ৯:০৭:পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ২২, ২০১৯

ভোলায় সহিংস ঘটনার পর চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) কমিশনারের ছবি ব্যবহার করে ফেসবুকে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে একজনকে আটক করা হয়েছে।

সোমবার (২১ অক্টোবর) রাতে চট্টগ্রাম নগরীর লালদিঘীর পাড় থেকে তাকে আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন।

পুলিশ জানিয়েছে, আটক ব্যক্তি নিজেকে এরশাদপন্থী জাতীয় পার্টির সহযোগী সংগঠন ‘জাতীয় সাইবার পার্টি’র চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার সমন্বয়ক হিসেবে পরিচয় দিয়েছেন।

আটক রবিউলের ফেসবুক আইডিতে বাঁশখালীর সাবেক সাংসদ জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরীর বিভিন্ন অনুষ্ঠানের ছবি আছে।

আটক এম এইচ রবিউল আলম (২৮) চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলার পুঁইছড়ি ইউনিয়নের পূর্ব পুঁইছড়ি গ্রামের আহমদ হোসেনের ছেলে। বাঁশখালীর একটি কওমি মাদ্রাসায় অষ্টম শ্রেণি সমমান পর্যন্ত পড়ালেখা করা রবিউল একজন কোরআনে হাফেজ বলে ওসি জানিয়েছেন। আটক রবিউল চাকরি করেন চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড উপজেলার বার আউলিয়া এলাকায় ফোর স্টার শিপিং নামে একটি জাহাজ ভাঙা কারখানায়।

ওসি মহসীন জানান, ভোলায় সাম্প্রতিক ঘটনার পর সিএমপি কমিশনার মো. মাহাবুবর রহমানকে ইসকনের একটি প্রতিনিধি দলের ফুল দেওয়ার ছবি দিয়ে ফেসবুকে পোস্ট দেন রবিউল। এতে সিএমপি কমিশনারকে ভোলার এসপি উল্লেখ করে আপত্তিকর তথ্য দেওয়া হয়। সঙ্গে ভোলার এসপির একটি ছবিও জুড়ে দেওয়া হয়।

এছাড়া হেফাজতে ইসলামের আমীর শাহ আহমদ শফী ও মহাসচিব জুনায়েদ বাবুনগরীর ছবি ব্যবহার করে হাটহাজারী মাদ্রাসা পুলিশ ঘিরে রেখেছে ও বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ করে দিয়েছে বলে মিথ্যা তথ্য ফেসবুকে ছড়ান রবিউল। একই পোস্টে তিনি জিহাদের প্রস্তুতি নেওয়ার আহ্বান জানান বলেও জানিয়েছেন ওসি।

পুলিশ কর্মকর্তা মহসীন বলেন, ‘রবিউলের ফেসবুকের টাইমলাইন থেকে মিথ্যা ও বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়ানো হয়েছে। পরিকল্পিতভাবে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরির জন্য রবিউল ও তার সহযোগীরা এ কাজ করেছেন। তাদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল আইনে মামলার প্রক্রিয়া চলছে।

এর আগে, ফেসবুকে ধর্ম অবমাননার অভিযোগের জের ধরে রোববার (২০ অক্টোবর) ভোলা জেলার বোরহান উদ্দিন উপজেলায় সহিংস ঘটনায় চার জন মারা যান।’