সুশান্তকে নিয়ে সিনেমার ট্রেইলার প্রকাশ, চটেছেন বোন প্রিয়াঙ্কা

টিবিটি টিবিটি

বিনোদন ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯:১২ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৭, ২০২১ | আপডেট: ৯:১২:অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৭, ২০২১

২০২০ সালের ১৪ জুন রবিবার, করোনার মাঝেই হঠাৎ খবর আসে মুম্বইয়ের নিজের ফ্ল্যাটে আত্মহত্যা করেছেন অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত। তরুণ অভিনেতার এভাবে চলে যাওয়া মন থেকে মেনে নিতে পারেননি কেউই। প্রশ্ন ওঠে, কেন এভাবে নিজেকে শেষ করে দিলেন তিনি। তারপরেই সামনে আসতে থাকে একের পর এক রহস্য। কখনও মাদকযোগ তো কখনও আর্থিক কারচুপি, সুশান্তের মৃত্যুর পিছনে দানা বাঁধে বহু রহস্য। যা নিয়ে এখনও তদন্ত চলছে।

দিন তিনেক আগে ‘ন্যায়: দ্য জাস্টিস’ নামে একটি ছবির ট্রেলার মুক্তি পেয়েছে। যা দেখে খুব সহজেই বোঝা যাচ্ছে, সুশান্ত সিং রাজপুতের নাম না-করেই, তাঁর মৃত্যুঘটনাকে কেন্দ্র করে বানানো হয়েছে সে ছবি।

ট্রেলারে দেখানো হচ্ছে এক অভিনেতার আত্মহত্যার ঘটনা। তার ঘরে ফ্যানে টাঙানো সবুজ ওড়না। সুশান্তের মৃত্যুর পরে তাঁর মৃতদেহের যে ছবিটি ভাইরাল হয়েছিল, সে রকম দৃশ্যও ব্যবহার করা হয়েছে ছবিটিতে। অভিনেতার প্রেমিকা, মৃত্যুর আসল কারণ, মাদকযোগ— কোনও বিতর্কই বাদ যায়নি।

ট্রেলারের ভিডিওটি দেখতে ক্লিক করুন এখানে

ট্রেইলার প্রকাশের পর ধারাবাহিক কয়েকটি টুইট করেন প্রিয়াঙ্কা সিং। এতে ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি লেখেন, ‘এই রকমের কাজ শুধুমাত্র ব্যক্তিগত জীবনে হস্তক্ষেপই নয়, আমার আদরের সুশান্তের নামকে কালিমালিপ্ত করার চেষ্টা। অত্যন্ত জঘন্যভাবে পুরো ব্যাপারটিকে প্রদর্শন করা। যে সব মানুষ নিজেদের স্বার্থসিদ্ধির জন্য আমাদের এই অপূরণীয় ক্ষতিকে ব্যবহার করছে তারা অপরাধী এবং নিজেরাই ক্রিমিনাল।’

সুশান্তের বোন এ বিষয়ে আইনি পদক্ষেপ গ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানান। তিনি লিখেছেন, ‘তারা কীভাবে নিজেদের মানুষ বলে পরিচয় দেয়, যখন মনুষ্যত্বের চিহ্নমাত্র নেই! যারা অমানুষ হয়েই খুশি তাদের বলছি, আদালতে দেখা হবে।’

‘ন্যায়: দ্য জাস্টিস’ সিনেমায় অভিনয় করছেন জুবায়ের খান, শ্রেয়া শুক্লা, শক্তি কাপুর, আমন বার্মা প্রমুখ।

গত ১৪ জুন নিজ ফ্ল্যাট থেকে সুশান্ত সিংয়ের লাশ উদ্ধার করা হয়। প্রাথমিকভাবে ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনে সুশান্তের মৃত্যুকে আত্মহত্যা বলে উল্লেখ করা হয়েছে। তবে এই অভিনেতার পরিবার ও ভক্তরা এর পেছনে অন্য কারণ রয়েছে বলে দাবি করেন। শুরুতে মুম্বাই পুলিশ তদন্ত শুরু করে। সুশান্তের পরিবার মামলা দায়ের করলে বিহার পুলিশও বিষয়টি খতিয়ে দেখতে শুরু করে। পরবর্তী সময়ে এই মামলার ভার নেয় ভারতের সেন্ট্রাল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন ( সিবিআই)। তবে এটি নিয়ে এখনো রহস্য কাটেনি। সুশান্তের মৃত্যুর ঘটনায় এখনো চূড়ান্ত প্রতিবেদন জমা দেয়নি সিবিআই।