সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে ‘রাজাকার পরিবারের সন্তান’ বললেন এমপি একরামুল: কাদের মির্জার বিক্ষোভ

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৬:৫৮ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২২, ২০২১ | আপডেট: ৬:৫৮:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২২, ২০২১

নোয়াখালী-৪ (সদর-সুবর্ণচর) আসনের সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরী আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের পরিবারকে ‘রাজাকারের পরিবার’ বলে আখ্যায়িত করে ভিডিও বার্তা দিয়েছেন। এর প্রতিবাদে ওবায়দুল কাদেরের ভাই কাদের মির্জা বিক্ষোভ কর্মসূচি শুরু করেছেন।

বৃহস্পতিবার রাতে একরামুল করিম চৌধুরী তার ভেরিফায়েড ফেইসবুক আইডি থেকে লাইভে এসে ওই মন্তব্য করেন। এর প্রতিবাদে শুক্রবার বিক্ষোভ মিছিল, সমাবেশ ও অবস্থান কর্মসূচি ঘোষণা করে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ।

২৬ সেকেন্ডের এই ভিডিও বার্তায় একরামুল করিম চৌধুরী বলেন, ‘দেশী মানুষ, আসসালা মুআলাইকুম। আমি কথা বললে তো মির্জা কাদেরের বিরুদ্ধে কথা বলব না, আমি কথা বলব ওবায়দুল কাদেরের বিরুদ্ধে।

একটা রাজাকার ফ্যামিলির লোক এই পর্যায়ে আসছে, তার ভাইকে শাসন করতে পারে না। এগুলো নিয়ে আমি আগামী কয়েকদিনের মধ্যে কথা বলব। আমার যদি জেলা আওয়ামী লীগের কমিটি না আসে তাহলে আমি এটা নিয়ে শুরু করব’।

এর প্রতিবাদে শুক্রবার বিকেল ৩টায় বিক্ষোভ সমাবেশের মঞ্চ থেকে মেয়র আবদুল কাদের মির্জার নেতৃত্বে কর্মসূচি ঘোষণা করেছে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ।

এসময় কাদের মির্জা বলেন, ‘যদি তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ না করা হয়, যদি তাকে দল থেকে বহিষ্কার করা না হয়, যদি নোয়াখালীর অপরাজনীতি বন্ধ করা না হয়, নোয়াখালীর প্রশাসনের বিভিন্ন জায়গায় যে খবরদারি বন্ধ করা না হয়, টেন্ডারবাজিসহ নানা অনিয়ম যদি বন্ধ করা না হয় আমরা লাগাতার ধর্মঘট চালিয়ে যাব’।

একরামুল করিম চৌধুরীর ফেইসবুক আইডি ঘুরে দেখা যায়, তিনি তার ফেইসবুক আইডি থেকে লাইভ ভিডিওটি সরিয়ে নিয়েছেন। এর আগেই কয়েক মিনিটের মধ্যে ফেইসবুকে তার ভিডিও বক্তব্যটি ভাইরাল হয়ে যায়।

এ বিষয়ে কথা বলতে একরামুল করিম চৌধুরী এমপি’র ব্যক্তিগত সেল ফোনে ৫টা ২০ মিনিটে কল করলে তিনি রিসিভ করেননি।

তবে তিনি শুক্রবার গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আমি তো ওবায়দুল কাদেরের বিরুদ্ধে কিছু বলিনি। আমি বলেছি মির্জা কাদেরের পরিবার স্বাধীনতাবিরোধী। আর কাদের ভাই হলো বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা। রাজাকার বংশের কাদের মির্জা গত এক মাস ধরে দলের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে, এর কোনো বিচার হয় না।’

একরামুল করিম চৌধুরী বলেন, ‘মির্জা কাদেরের চাচা রাজাকার কমান্ডার ছিলেন। তাকে কাদের ভাইয়ের বাহিনী গুলি করে মেরেছে। তার বাবা ছিলেন মুসলিম লীগার।

মির্জা কাদেরের নানা ছিলেন শান্তি বাহিনীর কমান্ডার। মামা ছিলেন রাজাকার। তাদের পুরো বংশই ছিল রাজাকার। একটা রাজাকার বংশের লোক নিয়মিত ৩০০ সাংসদের বিরুদ্ধে বলে যাচ্ছেন, তার বিরুদ্ধে কোনো ভূমিকা নেই দলের ভেতর’।

ভিডিওতে ওবায়দুল কাদেরের কথা উল্লেখ করা হয়েছে, এমন প্রশ্নের জবাবে একরামুল করিম চৌধুরী গণমাধ্যমকে আরো বলেন, ‘আমি আসলে কাদের ভাইকে নিয়ে কিছু বলিনি। গত এক মাস ধরে ধৈর্য ধরেছি। আমি মির্জা কাদেরকে উদ্দেশ করেই কথাগুলো বলেছি।’