স্কুল থেকে ‘জিয়ার নাম’ মুছে দেওয়ায় ফখরুলের নিন্দা

প্রকাশিত: ৭:৫৩ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৮, ২০২০ | আপডেট: ৭:৫৩:অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৮, ২০২০
সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ফাইল ছবি

পুরান ঢাকার মালিটোলায় অবস্থিত ‘শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়’ এর নাম পরিবর্তন করায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

শনিবার (২৮ নভেম্বর) সন্ধ্যায় এক বিবৃতিতে এ নিন্দা জানান তিনি।

বিবৃতিতে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ২০০৬ সালে ঢাকার তৎকালীন মেয়র মুক্তিযোদ্ধা সাদেক হোসেন খোকা ঢাকা সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে পুরান ঢাকার মালিটোলায় শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের নামে ‘শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়’ প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। বর্তমান সরকারের ইতিহাস বিকৃতি ও প্রতিহিংসার রাজনীতির বশবর্তী হয়ে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন ওই বিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তনের ন্যাক্কারজনক সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, গত অক্টোবর মাসে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন মহান স্বাধীনতার ঘোষক শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের নামে প্রতিষ্ঠিত বিদ্যালয়টির নাম পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নিলে তাৎক্ষণিকভাবে বিএনপি এবং এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে প্রতিবাদ জানানো হয়েছিল। আমরা এ ধরনের প্রতিহিংসামূলক পদক্ষেপ থেকে সরে আসার জন্য সিটি কর্পোরেশনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছিলাম। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য যে, সিটি কর্পোরেশন কারো কোনো দাবি, আহ্বানের প্রতি কর্ণপাত না করে ‘শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়’ নাম পরিবর্তন করে ‘পুরান মোগলটুলী উচ্চ বিদ্যালয়’ নামকরণ করেছে।

বিবৃতিতে মির্জা ফখরুল বলেন, নগরবাসীর নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি না হওয়ায় ঢাকা সিটির মেয়র ও কাউন্সিলররা নগরবাসীর উন্নয়নে ও তাদের উন্নত সেবা প্রদান না করে নাম পরিবর্তনের ন্যাক্কারজনক দলীয় করণে ব্যাস্ত রয়েছেন। নগরবাসীর নির্বাচিত প্রতিনিধি হলে তারা এ ধরনের হিংসাত্মক কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকতে পারতেন না।

বিবৃতিতে মির্জা ফখরুল ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন কর্তৃক শহীদ জিয়ার নামে প্রতিষ্ঠিত উচ্চ বিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তনের তীব্র প্রতিবাদ, নিন্দা ও ধিক্কার জানিয়ে বলেন, বিগত ১২ বছর শত চেষ্টা করে ফ্যাসিবাদী শাসকগোষ্ঠী জনগনের হৃদয় থেকে শহীদ জিয়ার নাম মুছে ফেলতে পারে নাই, কখনও পারবে না।