স্বস্তি ফিরছে পেঁয়াজের বাজারে

প্রকাশিত: ১১:২৫ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ৮, ২০১৯ | আপডেট: ১১:২৫:পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ৮, ২০১৯
ফাইল ছবি

গত চার মাস ধরে ধরা ছোঁয়ার বাইরে পেঁয়াজের দাম। এ সময় সর্বোচ্চ ১৬০ টাকা দরে পেঁয়াজ কিনতে হয়েছে ক্রেতাদের। তবে এখন তা কমে বাজারভেদে ১২০ থেকে ১৩০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা গেছে। দাম কিছুটা কমলেও তা পর্যাপ্ত না বলে মনে করছেন ক্রেতারা। এ নিয়ে ক্রেতা-বিক্রেতার মধ্যে রয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া।

শুক্রবার (৮ নভেম্বর) রাজধানীর খিলগাঁও, ফকিরাপুল, সেগুনবাগিচা, রামপুরা, খিলগাঁও রেলগেট কাঁচাবাজার ঘুরে এ চিত্র দেখা গেছে।

বাজার ঘুরে দেখা যায় প্রতিকেজি দেশি পেঁয়াজ ১২০ থেকে ১৩০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এক সপ্তাহ আগে প্রতিকেজি দেশি পেঁয়াজ ১৪০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা গেছে। এসব বাজারে বর্তমানে প্রতিকেজি আমদানি করা ভারতীয় (বড়) পেঁয়াজ বিক্রি হতে দেখা গেছে ১২০ থেকে ১২৫ টাকা। এক সপ্তাহ আগে আমদানি করা ভারতীয় পেঁয়াজ (ছোট) প্রতিকেজি বিক্রি হয়েছিল ১৩০ থেকে ১৪০ টাকা।

সপ্তাহের ব্যবধানে সব ধরনের পেঁয়াজে প্রতিকেজিতে কমেছে ১০ টাকা করে। তবে পেঁয়াজে দাম কমলে এ নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া রয়েছে ক্রেতা-বিক্রেতার মধ্যে।

এক পেঁয়াজ বিক্রেতা বলেন, পাইকারি বাজারে দাম কমলে খুচরাতে কমবে। সেখানে কিছুটা দাম কমায় খুচরাতেও দাম কমতে শুরু করেছে। তবে আদমানি করা পেঁয়াজ দেশের বাজারে এলে দাম কমে যাবে।

এক ক্রেতা বলেন, পেঁয়াজের কেজি যেখানে ১৪০ ছুঁই ছুঁই সেখানে ১০ টাকা কম কোনো দাম কমার মধ্যে পড়ে না। আমদানি করা পেঁয়াজ প্রতিনিয়ত বাজারে আসছে। নতুন ভাবে আমদানি করা হচ্ছে, তাহলে দাম কেন কমবে না?। তার মতে, বাজারে পেঁয়াজের ঘাটতি নেই অসাধু ব্যবসায়ীরা বেশি লাভের আশায় দাম বাড়িয়ে দিচ্ছেন।

এদিকে, সরকারি বিপণন সংস্থা ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) ট্রাকসেলে খোলা বাজারে পেঁয়াজ বিক্রি অব্যাহত রয়েছে। সরকারি বন্ধের দিন ছাড়া প্রতিদিন ৪৫ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি ট্রাকসেলে অব্যাহত রয়েছে। বাজার পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত ট্রাকসেলে বিক্রি অব্যাহত থাকবে বলে জানা গেছে।

বাজারে পেঁয়াজের দাম কমতে শুরু করলেও মসলা জাতীয় অন্য পণ্য আদা-রসুনের দাম অপরিবর্তিত রয়েছে। এসব বাজারে প্রতিকেজি দেশি রসুন বিক্রি হতে দেখা গেছে ১৫০ থেকে ১৬০ টাকা। চায়না রসুন ১৫০ টাকা, দেশি আদা ১৭০ টাকা, চায়না আদা ১৬০ টাকা, প্রতিকেজি কাঁচা আদা ১৪০ থেকে ১৫০ টাকা।

এছাড়া, রান্নায় অতি আবশ্যিক কাঁচা মরিচের দাম সপ্তাহের ব্যবধানে কমেছে কেজিতে ১০ টাকা। বর্তমানে বাজারে ১৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে রান্নার নিত্য এ পণ্যটি।