স্বামীকে বসিয়ে রেখে নৃত্য শিল্পীকে গণধর্ষণ, গ্রেপ্তার ৩

প্রকাশিত: ৫:১২ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২০, ২০১৯ | আপডেট: ৫:১২:অপরাহ্ণ, আগস্ট ২০, ২০১৯

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের সনমান্দি ইউনিয়নের দড়িকান্দি এলাকার একটি পরিত্যক্ত কারখানার কাশবনে স্বামীকে বসিয়ে রেখে এক নৃত্যশিল্পীকে ৫ জন মিলে ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

সোমবার দুপুরে একটি কোম্পানির স্টোজ প্রোগ্রাম করার কথা বলে কাশবনে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করা হয়। এ ঘটনায় রাতে ওই নারী বাদী হয়ে সোনারগাঁ থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, মাহমুদুল হাসান হিমেল, সফিকুল ইসলাম রনি ও সানজিদ। তাদের বাড়ি সোনারগাঁও ও বন্দর উপজেলার বিভিন্ন এলাকায়।

মামলার এজাহার থেকে জানা গেছে, উপজেলার সনমান্দি ইউনিয়নের সুচারগাঁও গ্রামের মাহমুদুল হাসান হিমেল স্টেজ শো করার নামে ওই পেশাদার নৃত্য শিল্পীর সঙ্গে ছয় হাজার টাকায় চুক্তি করেন। এর মধ্যে এক হাজার টাকা অগ্রিম পরিশোধও করেন। চুক্তিমতো সোমবার বেলা ১১টায় ওই নৃত্য শিল্পী, তার স্বামী, দুই সহপাঠী, সহপাঠীর মা এবং দেবরকে নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন।

পরে দুপুর ১২টায় হিমেল সেখানে গিয়ে নৃত্য শিল্পীর সঙ্গে আসা সবাইকে স্থানীয় একটি শিল্প প্রতিষ্ঠানের নিরাপত্তা ব্যারাকের সামনের বসিয়ে রেখে নৃত্য শিল্পী ও তার সহপাঠী মামুনকে ফুসলিয়ে প্রতিষ্ঠানের ভেতরে কাঁশবনের নির্জন এলাকায় নিয়ে যান। এ সময় সেখানে আগে থেকে অবস্থানরত চার যুবক নৃত্য শিল্পীর সহপাঠী মামুনকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে ওই নৃত্য শিল্পীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করেন। পরে ধর্ষণের বিষয়ে কাউকে না জানানোর হুমকি দিয়ে তারা পালিয়ে যান।

সোনারগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামান বলেন, ‘নৃত্য শিল্পীকে গণধর্ষণের ঘটনায় তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অভিযুক্ত অন্য দুইজনকে গ্রেপ্তারে পুলিশি অভিযান চলছে।’