স্বামীর লেখা কলেজ জীবনের চিঠি পেয়ে কাঁদলেন স্ত্রী

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯:৩৮ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৮, ২০২০ | আপডেট: ৯:৩৮:অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৮, ২০২০

প্রিয়জনের দেওয়া পুরনো চিঠি খুঁজে পেলে সবারই ভাল লাগে। কিন্তু সেই চিঠি পেয়ে চোখের জলে ভাসালেন এই মহিলা। বড়দিনে চিঠিগুলি নাতি-নাতনিরা ঠাকুমাকে উপহার দিয়েছে। এই চিঠিগুলি তাঁদের দাদু, কলেজে পড়ার সময় ঠাকুমাকে দিয়েছিলেন। কিন্তু চিঠি পেয়েই আবেগে কেঁদে ফেলেন ঠাকুমা। তবে কান্নার কারণও খুঁজে পাওয়া গিয়েছে, নাতনির করা টুইটে।

‘ফরএভারএলএএস’ নামে এক টুইটার ইউজারকিছু ছবি ও ভিডিও পোস্ট করেছেন। সেখানে তিনি লিখেছেন,‘সাত মাস আগে আমার দাদু মারা গিয়েছেন। ফলে দাদুকে ছাড়া এটাই আমার দাদীর প্রথম ক্রিসমাস। আমরা ঠিক করি, দাদীকে লেখা দাদুর পুরনো কিছু চিঠি তার (দাদীর) হাতে তুলে দেব। ১৯৬২ সালে তারা যখন কলেজে পড়তেন সেই চিঠিগুলি আমরা খুঁজে পেয়েছি। দাদু এতদিন চিঠিগুলি যত্ন করে তুলে রেখেছিলেন। সেগুলোই খুঁজে পাওয়া গিয়েছে।’

এই পোস্টের সঙ্গে একটি ভিডিও আপলোড করা হয়েছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে, সাত মাস আগে স্বামীকে হারানো ওই বৃদ্ধা স্ত্রীর হাতে একটি বাক্স তুলে দেয়া হচ্ছে। সুন্দর ধাতুর সেই বাক্সের উপরেই এমন কিছু লেখা রয়েছে যা দেখে তিনি বুঝতে পারেন সেটি পুরনো চিঠির বাক্স। সঙ্গে সঙ্গে আবেগে তার চোখে পানি চলে আসে। সেই অবস্থাতেই তিনি চিঠিগুলি খুলে দেখছিলেন।

এই টুইটার হ্যান্ডলে চিঠিগুলোর ছবিও পোস্ট করা হয়েছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে- খামের উপর ১৯৬৩ সালের স্ট্যাম্প মারা। উপরের ছবিতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অ্যানাপোলিসের ছাপ রয়েছে। নীচের দু’টি চিঠিতে আবার ভার্জিনিয়া প্রদেশের পিটার্সবার্গের স্ট্যাম্প।

ছবি ও ভিডিওগুলো গত ২৬শে ডিসেম্বর টুইটারে পোস্ট করা হয়েছে। প্রচুর মানুষ সেগুলো লাইক করেছেন। ভিডিওটি এখন পর্যন্ত এক কোটি ৬৬ লাখের বেশিবার দেখা হয়েছে। সূত্র : আনন্দবাজার।