হামলার আশঙ্কায় ভারতে মাদ্রাসার ভেতরেই মন্দির

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯:২৭ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৫, ২০১৯ | আপডেট: ৯:২৭:অপরাহ্ণ, জুলাই ১৫, ২০১৯
ছবি: সংগৃহীত

ভারতে চলমান হিন্দু মুসলিম সাম্প্রদায়িক অস্থিরতার মধ্যেই এবার দুই ধর্মের অনুসারীদের মধ্যে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখতে আলিগড়ে মাদ্রাসার ভবনের ভেতরেই মন্দির নির্মাণের উদ্যোগ নিল আলিগড়ের চাচা নেহরু মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ।

আলিগড়ের এই মাদ্রাসাটি পরিচালনা করেন ভারতের সাবেক উপ-রাষ্ট্রপতি হামিদ আনসারীর স্ত্রী সালমা আনসারী। সম্প্রতি চলমান সাম্প্রদায়িক অস্থিরতার মধ্য দিয়ে সম্প্রীতি নির্মাণে তার এই উদ্যোগের কথা জানা যায়। খবর ইন্ডিয়া টুডের।

সালমা আনসারির এমন ঘোষণার পরই আলিগড়ের চাচা নেহরু মাদ্রাসার ভেতরে পূজা শুরু হয়। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস নাউয়ের তোলা ছবিতে মাদ্রাসার ভেতরে সরস্বতী মূর্তি দেখা গেছে।

মাদ্রাসার অভ্যন্তরে এভাবে মন্দির স্থাপনের বিষয়ে সালমা আনসারি বলেন, ভ্রাতৃত্বের বার্তা দেয়ার পাশাপাশি, এই পদক্ষেপে শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তাও নিশ্চিত করা যাবে। প্রার্থনা করতে এখন আর তাদের ক্যাম্পাসের বাইরে যেতে হবে না।

এ পদক্ষেপের মাধ্যমে দেশের অন্যান্য মাদ্রাসাগুলো বিষয়টিতে অনুপ্রাণিত হবে বলে আশা করেন তিনি।

মাদ্রাসার হোস্টেলে যে ছেলেমেয়েরা থাকে, তাদের নিরাপত্তার কথা ভেবেই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানান সালমা আনসারি।

তিনি বলেন, ‘হোস্টেল থেকে মন্দির বা মসজিদে যাওয়ার পথে যদি কিছু ঘটে, তাহলে আমাদের ওপরই তার দায় বর্তাবে। তাই ভেবেচিন্তে ক্যাম্পাসের মধ্যেই মন্দির এবং মসজিদ নির্মাণের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

২০১৭ সালের আগস্টে উপ-রাষ্ট্রপতির পদ থেকে বিদায় নেন হামিদ আনসারি। বিদায়কালে ধর্মীয় অসহিষ্ণুতা নিয়ে মোদি সরকারের সমালোচনা করেছিলেন তিনি।

বিজেপির আমলে দেশের সংখ্যালঘু সম্প্রদায় অস্বস্তিতে রয়েছেন, নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলে সেইসময় মন্তব্য করেছিলেন তিনি। এ নিয়ে বিজেপি নেতাদের সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছিল তাকে।