হাসপাতালে চিকিৎসকসহ অনুপস্থিত ৪৮, হমভম্ব বিভাগীয় পরিচালক

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১:৩২ পূর্বাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৬, ২০১৯ | আপডেট: ১:৩৬:পূর্বাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৬, ২০১৯
ছবিঃ সংগৃহিত

রংপুর বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) ডা. অমল চন্দ্র সাহা কর্মস্থলে অনুপস্থিত না থাকায় কারণে চিকিৎসকসহ ২৫ জনের বিরুদ্ধে হাজিরা খাতায় লাল কালি বসিয়ে দিলেন। কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার ৫০ শয্যা বিশিষ্ট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ ঘটনাটি ঘটেছে ।

ডা. অমল চন্দ্র সাহা মঙ্গলবার সকালে আকষ্মিক পরিদর্শনে যান । সে সময় কাউকে না পেয়ে হমভম্ব হয়ে পড়েন তিনি! অনুপস্থিত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধ বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

জানা যায়, ফুলবাড়ী উপজেলা ৫০ শয্যা বিশিষ্ট স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মোট ১০৫ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী রয়েছে। এদের মধ্যে কর্মরত ছিলেন ৭৩ জন। বিভাগীয় পরিচালকের পরিদর্শনকালে ৪৮জন কর্মচারী কর্মস্থলে উপস্থিত না থাকার কারণে ক্ষিপ্ত হন তিনি। পরে অনুপস্থিত ২৫ জনের বিরুদ্ধে হাজিরা খাতায় নিজেই লালকালি বসিয়ে দেন।

অনুপস্থিত চিকিৎসক ও কর্মচারীগণ হলেন, মেডিকেল অফিসার সহকারী সার্জন ডা. গোলাম কিবরিয়া, ডা. আসিফ ইকবাল, ডা. মোছাঃ পদ্ম ডা. আর্জিনা খাতুন, ডা. সাদ্দাম হোসেন। উপসহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার (স্যাকমো) আব্দুল বাতেন, আখতারা বেগম, শ্রী মুকুল বিকাশ রায়, এম নাছিম উজজ্জামান চৌধুরী ।

এমটি ল্যাব এসিসট্যান্ট সুধাংশু চন্দ্র কবিরাজ, সিনিয়র স্ট্যাফ নার্স মোছা. মৌসুমী খাতুন, মোছা. লাবনী আক্তার, মোছা. সুমাইয়া বেগম, মোছা. ডলি পারভিন, মোছা. নাছিমা খাতুন ও মোছা. রাশেদা খাতুন, পরিসংখ্যানবিদ সিরাজুল ইসলাম, মেডিকেল টেকনোলোজিষ্ট (ইপিআই) মো. আয়নাল হক, অফিস সহকারী মোছা. হেনা বেগম, হারুন-অর-রশীদ, অফিস সহায়ক ইব্রাহিম মিয়া, শামীমুর রহমান, এ্যাম্বুলেন্স চালক একাব্বর আলী ও আব্দুল্লাহ আল কাওছার এবং গার্ডেনার আব্দুর রাজ্জাক।

এ ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মেশকাতুল আবেদ জানান, ‘যারা অনুপস্থিত ছিল তাদের সকলকে শোকজ করা হয়েছে।’

এ ব্যাপারে রংপুর বিভাগীয় মহাপরিচালক (স্বাস্থ্য) ডা. অমল চন্দ্র সাহা জানান, ফুলবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পরিদর্শনে যাওয়া হয়। সেখানে যাদের কর্মরত অবস্থায় হাসপাতালে পাওয়া যায়নি তাদের হাজিরা খাতায় লালকালি দিয়ে চিহ্নিত করা হয়েছে। পরর্বতীতে তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’
Add Image