হোয়াইট হাউস ছাড়তে হলো বাইডেনের কুকুরকে

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯:৩৫ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৩, ২০২১ | আপডেট: ৯:৩৫:অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৩, ২০২১

তিন বছর বয়সী জার্মান শেফার্ড কুকুর মেজর। বাইডেন দম্পতির খুব প্রিয়। কিন্তু তাকে আপাতত হোয়াইট হাউস ছাড়তে হচ্ছে।

হোয়াইট হাউসে আসার পর দুইজনকে কামড়ে দিয়েছে মেজর। প্রথম কামড়ের পর তাকে বাইডেনের বাড়িতে নিয়ে গিয়ে প্রশিক্ষণও দেয়া হয়েছিল। তাতেও লাভ হয়নি। মেজর আবার কামড়েছে একজনকে। ফলে তাকে হোয়াইট হাউস ছেড়ে যেতে হচ্ছে বাড়তি প্রশিক্ষণের জন্য।

আপাতত আগামী কয়েক সপ্তাহ ধরে তার প্রশিক্ষণ চলবে। জিল বাইডেনের মুখপাত্র জানিয়েছেন, প্রশিক্ষণ হবে মেজরের স্বভাব বদলের জন্য।

আসলে হোয়াইট হাউসে প্রচুর মানুষ সবসময় থাকেন। সিক্রেট সার্ভিসের এজেন্টরা ভিড় করে আছেন। তারা প্রেসিডেন্ট ও ফার্স্ট লেডির সঙ্গে থাকেন। তার উপর প্রচুর কর্মী। ফলে নতুন পরিবেশে নিজেকে খাপ খাইয়ে নিতে অসুবিধা হচ্ছে মেজরের। বাইডেনের আরো একটি জার্মান শেফার্ড কুকুর আছে, তার নাম চ্যাম্প। ১২ বছর বয়সী চ্যাম্প অবশ্য হোয়াইট হাউসের পরিবেশের সঙ্গে দিব্যি মানিয়ে নিয়েছে।

প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার আগেই পোষা কুকুরের কারণে খবরে এসেছেন জো বাইডেন৷ জার্মান শেফার্ড কুকুর মেজরকে নিয়ে খেলতে গিয়ে গোড়ালিতে চোট পেয়েছেন তিনি৷ চোট পেলেও বাইডেন থামছেন না৷ হোয়াইট হাউসে মেজর তো থাকছেই, সঙ্গে একটা বিড়াল পোষার কথাও ভাবছেন তিনি৷ হোয়াইট হাউসে বিড়াল বহুবার পোষা হয়েছে৷ প্রথম পুষেছিলেন যুক্তরাষ্ট্রের দ্বিতীয় প্রেসিডেন্ট রাদারফোর্ড হায়েস৷

গত মাসে মেজর হাঁটতে যাওয়ার সময় একজনকে আঁচড়ে-কামড়ে দিয়েছিল। তার আগে সিক্রেট সার্ভিসের একজন এজেন্টকে সে কামড়ে দিয়েছিল। ন্যাশনাল পেটস ডে-তে জিল বাইডেন দুই কুকুরের ছবি দিয়ে লিখেছিলেন, ‘দুইজনকে খুব ভালোবাসি’।

হোয়াইট হাউসে নিজের পোষ্যদের নিয়ে যাওয়ার একটা রীতি আছে অ্যামেরিকার প্রেসিডেন্টদের মধ্যে। ওবামার দুইটি কুকুর ছিল। জর্জ বুশের তিনটি কুকুর ছিল।

সূত্র: ডয়চে ভেলে।