১৪০ কোটি টাকা ঋণের বোঝা নিয়ে দায়িত্ব নিচ্ছেন মেয়র জাহাঙ্গীর

প্রকাশিত: ১:১৬ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৩, ২০১৮ | আপডেট: ১:১৬:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৩, ২০১৮

নাসিরউদ্দীন বুলবুল, গাজীপুর: গাজীপুর সিটি করপোরেশনকে গ্রিন ও ক্লিন সিটি বির্নিমাণের প্রত্যয় নিয়ে আগামীকাল দেশের সর্ববৃহৎ সিটির দায়িত্ব নিচ্ছেন মেয়র অ্যাডভোকেট মো. জাহাঙ্গীর আলম। নবনির্বাচিত এই মেয়র নির্বাচনকালীন ঘোষিত ইশতেহার বাস্তবায়নে নিষ্ঠার সঙ্গে তার ওপর অর্পিত দায়িত্ব পালন করবেন বলেও ঘোষণা দিয়েছেন। সিটির উন্নয়নের স্বার্থে স্থান বিশেষে অনুমোদনহীন স্থাপনা উচ্ছেদের মতো কর্মসূচি হাতে নেয়ারও ইঙ্গিত প্রদান করেছেন। তিনি গাজীপুর সিটি করপোরেশনকে আধুনিক সুবিধাসংবলিত নগর হিসেবে গড়ে তুলতে সবার সহযোগিতা কামনা করেন। তরুণ ও উদীয়মান তথা ক্লিন ইমেজের এ নেতাকে পেয়ে সিটি করপোরেশনের জনগণ প্রত্যাশার চেয়ে বেশি কিছু পাবেন বলেও আশা পোষণ করছেন।

নবনির্বাচিত মেয়র অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম বলেন, আমি নগরবাসীকে বলেছিলাম একটি সুন্দর পরিকল্পিত নগরী উপহার দেব। নগরবাসী আমাকে বিশ্বাস করেছে, সেই বিশ্বাসের মর্যাদা আমি রাখব ইনশাআল্লাহ। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নৌকাকে ভালোবেসে গাজীপুরের জনগণ আমাকে যে আশায় ভোট দিয়ে বিজয়ী করেছে, আমি তাদের এই আশার প্রতিফলন ও প্রতিদান দেয়ার চেষ্টা করব।

সবাইকে নিয়েই একটি বাসযোগ্য শহর গড়ে তুলব।

গাজীপুর দেশের প্রধান ঐতিহাসিক শহরগুলোর মধ্যে অন্যতম। ভাওয়াল জমিদার ১৭ শতকের প্রথম দিকে এ শহরের গোড়াপত্তন ঘটান। ২০১৩ সালে গাজীপুর ও টঙ্গী পৌরসভা এবং ৬টি ইউনিয়ন (কাশিমপুর, কোনাবাড়ী, বাসন, কাউলতিয়া, গাছা ও পূবাইলসহ ৩২৯.৫৩ বর্গকিলোমিটার এলাকা নিয়ে গঠিত হয় গাজীপুর সিটি করপোরেশন। সিটি করপোরেশনের ৫৭টি ওয়ার্ডে মোট ভোটার ১১ লাখ ৩৭ হাজার ৭৩৭ জন। এর মধ্যে ৫ লাখ ৭৯ হাজার ৯৩৫ জন পুরুষ এবং ৫ লাখ ৬৭ হাজার ৮০১ জন নারী। এই সিটিতে বিভিন্ন জেলার প্রায় ৩৫ লাখ লোকের বসবাস। দেশের এই বৃহৎ সিটি করপোরেশনের জনগণের সুখ-দুঃখের চিন্তা মাথায় রেখে দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম।

মেয়র বলেন, আমাকে ১৪০ কোটি টাকার ঋণের বোঝা ও বিভিন্ন সমস্যায় জর্জরিত গাজীপুর সিটি করপোরেশনের দায়িত্ব নিতে হচ্ছে। সিটির বেশির ভাগ রাস্তা খানাখন্দে ভরা। এসব সড়ক দিয়ে প্রতিনিয়ত কর্মজীবী মানুষকে বহু কষ্টে তাদের গন্তব্যে পৌঁছতে হচ্ছে। আমি এই কষ্ট দূর করার জন্য রাস্তাঘাট ও জলাবদ্ধতা দূরীকরণে ড্রেনেজ ব্যবস্থাসহ বিভিন্ন অবকাঠামো উন্নয়নে নগরবাসীর দোয়া ও সহযোগিতা চাই। গাজীপুর সিটি করপোরেশনে সমস্যার শেষ নেই। এ সমস্যার মধ্যেই ৪ঠা সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার ১৪০ কোটি টাকা ঋণের বোঝা নিয়ে আমাকে দায়িত্ব নিতে হচ্ছে।

তিনি বলেন, নগরবাসীর দুর্ভোগের কথা বিবেচনা করে আমি নির্বাচিত হয়েও বিজয় মিছিল বা আনন্দ উল্লাস করিনি। তিনি নগরবাসীর উদ্দেশে বলেন, আপনাদের প্রতি আমার একটাই অনুরোধ, আপনারা নিজ নিজ এলাকার শান্তি বজায় রাখবেন, এটা আপনাদের দায়িত্ব। আমি একটি চ্যালেঞ্জের মধ্যে এসেছি, সেই চ্যালেঞ্জটা বাস্তবায়ন করতে হলে সবার সহযোগিতা থাকা দরকার। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সহযোগিতায় আমি ওই চ্যালেঞ্জটি বাস্তবায়ন করতে চাই।

নবনির্বাচিত মেয়র জাহাঙ্গীর আলম জানান, মহানগরের ছেলেমেয়েদের আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষিত করার জন্য তিনি আধুনিক ও প্রযুক্তিনির্ভর শিক্ষাব্যবস্থা গড়ে তুলবেন। নগরীর মেধাবী শিক্ষার্থীদের জন্য বৃত্তিপ্রদানসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা করবেন।

তিনি বলেন, একটি সুন্দর নগর গড়ার স্বার্থে দীর্ঘ মেয়াদি পরিকল্পনা থাকা দরকার। যা আরো ৪০ বছর আগেই এই নগরীর জন্য একটি পরিকল্পনা নেয়া দরকার ছিল। ট্রাক-বাসস্ট্যান্ড, যাত্রী ছাউনি, আবর্জনাগারের জন্য উপযুক্ত জায়গা নেই। প্রয়োজনীয় জমি অধিগ্রহণ করে এসব সমসার স্থায়ী সমাধান করা হবে। এ ব্যাপারে সবার সহযোগিতা কামনা করেন এই তরুণ মেয়র।

উল্লেখ্য, গত ২৬শে জুন শিল্প অধ্যুষিত এই বৃহৎ সিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। মো. জাহাঙ্গীর আলম ৪ লাখ ১০ ভোট পেয়ে গাজীপুর সিটি করপোরেশনে মেয়র নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি মনোনীত হাসান উদ্দিন সরকার পান ১ লাখ ৯৭ হাজার ৬১১ ভোট। অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হাসান উদ্দিন সরকারের চেয়ে ২ লাখ ২ হাজার ৩৯৯ ভোটের বিশাল ব্যবধানে জয় লাভ করেন।