১৬ জুলাই ছায়াশূন্য হয়ে পড়বে পবিত্র কাবা শরীফ

টিবিটি টিবিটি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রকাশিত: ৭:৩২ অপরাহ্ণ, জুন ৮, ২০২১ | আপডেট: ৭:৩২:অপরাহ্ণ, জুন ৮, ২০২১

কাবা শরীফ ছায়াশূন্য হয়ে পড়তে যাচ্ছে। আগামী মাসের মাঝামাঝি অর্থাৎ ১৬ জুলাই এই ঘটনা ঘটবে। এর আগে গত মাসের শেষ দিকে ২৮ মে তারিখেও ছায়াশূন্য অবস্থায় ছিল পবিত্র কাবা শরীফ। অর্থাৎ আগামী ১৬ জুলাই মধ্যদুপুরে যখন সূর্য মধ্য গগণে থাকবে, তখন মাটিতে কোনো ছায়া পড়বে না পবিত্র কাবা শরীফের। ঠিক একই রকম ছায়া পড়েনি গত ২৮মে-তেও।

মহাকাশ বিজ্ঞানীরা সূর্যের এই অবস্থানকে ‘ছায়াশূন্য (জিরো শ্যাডো)’ অবস্থা বলে চিহ্নিত করেছেন। বছরে অন্তত দুইবার মক্কায় এই ঘটনা ঘটে।

এ বিষয়ে জেদ্দা অ্যাস্ট্রোনোমিক্যাল সোসাইটি জানিয়েছে, গত ২৮ মে (বৃহস্পতিবার) দুপুর নাগাদ মক্কার পবিত্র কাবা শরীফের সঙ্গে সরাসরি একই লাইনে অবস্থান করে সূর্য। সূর্যের কেন্দ্রবিন্দুটি সে সময় কাবার ঠিক ওপরে উঠে আসে।

তারা আরও জানায়, ওই দিন মক্কানগরীতে ভোর ৫টা ৩৮ মিনিটে সূর্যোদয় হয়। উত্তরপূর্ব দিকটি থেকে সূর্য ধীরে ধীরে উপরে উঠতে শুরু করে এবং দুপুর ১২টা ১৮ মিনিটে তা ঠিক কাবা শরীফের মাথার ওপর উঠে আসে। আর সে কারণে সাময়িক সময়ের জন্য পবিত্র এই ঘরের কোনো দিকে কোনো ছায়া ছিল না।

মহাকাশ বিজ্ঞানীরা সূর্যের এই অবস্থানকে ‘ছায়াশূন্য (জিরো শ্যাডো)’ অবস্থা বলে চিহ্নিত করেছেন। বছরে অন্তত দু’বার পবিত্র মক্কা নগরীর ক্ষেত্রে এই ঘটনা ঘটে। গবেষকরা জানান, পবিত্র কাবা ঘরটি বিষুব রেখা ও কর্কটক্রান্তির ঠিক মাঝখানে অবস্থিত হওয়ার কারণেই এমনটা ঘটেছে।

পৃথিবীর অক্ষরেখায় সূর্য ২৩.৫ ডিগ্রি কৌণিক অবস্থান নিয়ে বিষুব রেখার উত্তর ও দক্ষিণ দিকে ঘুরতে থাকে। এভাবে একবার উত্তর গোলার্ধে একবার দক্ষিণ গোলার্ধে যায়। আর এই আসা যাওয়ার পথে বছরে দু’বার সরাসরি পবিত্র কাবা শরীফের ঠিক উপরে অবস্থান করে এটিকে ছায়াশূন্য করে দেয়।