১৭০ বাসযাত্রীকে অপহরণ করলো তালেবান

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ৮:১০ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ২০, ২০১৮ | আপডেট: ৮:১০:পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ২০, ২০১৮

তালেবান জঙ্গিরা আফগানিস্তানের দক্ষিণাঞ্চল থেকে দেড় শতাধিক বাসযাত্রীকে অপহরণ করেছে। সোমবার দক্ষিণাঞ্চলীয় কুন্দুজ প্রদেশের কাছাকাছি এলাকায় ৩টি বাস থেকে তাদেরকে অপহরণ করা হয়েছে বলে খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স ও বিবিসি।

সরকারের স্থানীয় কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে, কুন্দুজ প্রদেশে একটি বাসস্টপেজে বাস ৩টি থামলে ওইসব বাসে থাকা যাত্রীদের অপহরণ করে তালেবান যোদ্ধারা। তবে প্রকৃত অপহৃতের সংখ্যা নিয়ে দ্বিমত পাওয়া গেলেও এ সংখ্যা ১৭০ বলে জানিয়েছে আফগানের সংবাদ মাধ্যম ‘তোলো’।

কুন্দুজ প্রদেশের গভর্নরের মূখপাত্র ইসমাতুল্লাহ মুরাদি বলেন, সোমবার সকালে অপহরণের এ ঘটনা ঘটেছে। বাস তিনটি তাখার প্রদেশ থেকে রাজধানী কাবুলের দিকে যাচ্ছিল।

তিনি বলেন, বাস তিনটি যখন ওই স্টপেজে থামে তখন অস্ত্রধারী তালেবান সদস্যরা তাদের অপহরণ করে। অস্ত্রের মুখে যাত্রীদের বাস থেকে নামতে বাধ্য করা হয় এবং পরে তাদেরকে অজ্ঞাত কোনো স্থানে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি তালেবানের সঙ্গে যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করার একদিন পরেই এই ঘটনা ঘটলো।

এ ঘটনায় বহু সংখ্যক নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যকে ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে এবং সেখানে তালেবান জঙ্গিদের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনাও ঘটেছে বলে জানা গেছে।

অবশ্য ওই এলাকাটি তালেবানদের দখলে বলে জনাব মুরাদি বিবিসিকে জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য, গত সপ্তাহে তালেবান সদস্যরা আফগানিস্তানের গজনী শহর দখলে নেয়ার ঘোষণা দেয়। সেখানে তুমুল লড়াইয়ে ১৫০ জনের অধিক বেসামরিক লোকজন নিহতের পর গজনী শহর উদ্ধারের দাবি করে আফগান সরকার।

এরপর ব্রিটিশ শাসন থেকে আফগানিস্তানের স্বাধীনতার ৯৯তম বার্ষিকী উপলক্ষে রোববার কাবুলে এক অনুষ্ঠানে এ ঘোষণা দেন প্রেসিডেন্ট ঘানি। খবর আলজাজিরা।

তিনি বলেন, সোমবার থেকে শর্তসাপেক্ষে যুদ্ধবিরতি শুরু হবে এবং তালেবানরা যতদিন এ যুদ্ধবিরতির প্রতি সম্মান জানাবেন, ততদিন এটি কার্যকর থাকবে।

প্রকৃত ও টেকসই শান্তি প্রতিষ্ঠার যে স্বপ্ন আফগান জনগণ দেখেন, তা বাস্তবায়নের উদ্দেশ্যে ঘোষিত এ যুদ্ধবিরতিকে তালেবান নেতারা স্বাগত জানাবেন বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

প্রেসিডেন্ট ঘানি বলেন, ‘শর্তযুক্ত’ এ যুদ্ধবিরতি তিন মাস কার্যকর রাখার চেষ্টা করা হবে। শুধু তালেবানের প্রতি এ যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করা হয়েছে, অন্য সন্ত্রাসীগোষ্ঠী এ যুদ্ধবিরতির বাইরে থাকবে। আফগানিস্তানে উগ্র জঙ্গিগোষ্ঠী আইএসের সক্রিয় উপস্থিতি রয়েছে।

এদিকে প্রেসিডেন্ট ঘানির এ ঘোষণা সম্পর্কে তালেবানরা বলেছে, তারা পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে চার দিনের যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করেছে। এ সময়ে শত শত বন্দিকে তারা মুক্তি দেবে বলে ঘোষণা করা হয়েছে।