৪০ বছরের যাতায়াতের পথে অবৈধভাবে ঘর দিতে বেড়া!

প্রকাশিত: ৮:৪২ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২০, ২০১৯ | আপডেট: ৮:৪৬:অপরাহ্ণ, আগস্ট ২০, ২০১৯
ছবি: টিবিটি

জি এম মুজিবুর রহমান, আশাশুনি (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি: আশাশুনিতে ৪০ বছরেরও উর্দ্ধে ব্যবহৃত যাতয়াতের পথ অবৈধ ভাবে ঘেরাবেড়া দিয়ে পথ অবরোধের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এব্যাপারে ইউএনও বরাবর অভিযোগ করলে সালিস না মেনে পথে ঘর নির্মানের চেষ্টা চালানো হচ্ছে। ঘটনা ঘটেছে কাদাকাটি ইউনিয়নের তেঁতুলিয়া মৌজায়।

টেংরাখালী গ্রামের মৃত ফুলচাঁদ মন্ডলের পুত্র বাবুলাল মন্ডল দিং দীর্ঘ ৪০ বছরেরও অধিক কাল তেঁতুলিয়া মৌজায় এস এ ৯৮ ও ১০০ দাগ, হাল ৯৬ ও ৯৭ দাগের জমি ভোগ দখল করে আসছেন। সেখানে সকলের জ্ঞাত সারে তারা শান্তিপূর্ণ ভাবে তাদের একমাত্র যাতয়াতের পথ হিসাবে ব্যবহার করে আসছেন। পথটি ইটের সোলিংকৃত রাস্তা হিসাবে ব্যবহৃত হচ্ছে।

একই গ্রামের মৃত মন মথুর মন্ডলের পুত্র পঞ্চরাম, রঞ্জন, সুভাষ, গণেশ, সুকুমার এবং মনিন্দ্র নাথ মন্ডলের পুত্র কৃষ্ণপদ ও বিষ্ণপদ উক্ত রাস্তাটিতে গায়ের জোরে ঘেরাবেড়া দিয়ে পথ রোধ করে দেয়। বিষয়টি নিরসনের জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসার মীর আলিফ রেজা বরাবর আবেদন করা হলে তিনি ইউপি চেয়ারম্যান কাদাকাটিকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য দাুিয়ত্ব অর্পন করেন।

চেয়ারম্যান দীপঙ্কর কুমার সরকার বাদী ও বিবাদীকে নোটিশ করে ১৮ জুলাই শুনানী করলে বিবাদী পক্ষ সালিশ মানতে অস্বীকৃতি জানান। এদিকে আইনে অশ্রদ্ধাশীল বিবাদীরা মঙ্গলবার (২০ আগষ্ট) উক্ত পথের সোলিং এর ইট উঠিয়ে নিয়ে সেখানে ঘর নির্মানের কার্যক্রম শুরু করেছে।

চেয়ারম্যান দিপঙ্কর কুমার সরকার জানান, বিষয়টি মীমাংসার উদ্যোগ নেওয়া হলেও বিবাদী পক্ষ মানতে রাজী হয়নি। রাস্তায় ঘর নির্মান করছে জানতে পেরে গ্রাম পুলিশ পাঠানো হয় কিন্তু তারা কোন কথা বলেনি। বাদী পক্ষ এব্যাপারে প্রতিকার চেয়ে তাৎক্ষণিকভাবে থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।