৫% সুদে সরকারি চাকরিজীবীদের গৃহনির্মাণ ঋণের চুক্তি সই

টিবিটি টিবিটি

নিউজ ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:৫১ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৮ | আপডেট: ১২:৫১:অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৮

১৪ লাখ সরকারি চাকরিজীবীকে ৫% সুদে গৃহনির্মাণ ঋণ দিতে অর্থ মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে সমঝোতা স্মারক সই করেছে রাষ্ট্রায়ত্ত চার ব্যাংক ও হাউস বিল্ডিং করপোরেশন। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় সচিবালয়ে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিতের উপস্থিতিতে এ চুক্তি সই হয়।

চুক্তিতে সাক্ষরকারী ব্যাংকগুলো হলো- সোনালী, জনতা, অগ্রণী ও রূপালী ব্যাংক। চুক্তি সাক্ষর অনুষ্ঠানে অর্থ মন্ত্রণালয়ের পক্ষে অর্থ বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব আবদুল রউফ তালুকদার এবং ব্যাংকগুলোর পক্ষে নিজ নিজ ব্যাংকের এমডি সই করবেন।

এই চুক্তি স্বাক্ষরের ফলে সরকারি কর্মকর্তারা আগামী ১ অক্টোবর থেকে স্বল্পসুদে গৃহনির্মাণের জন্য ব্যাংকের কাছে আবেদনপত্র জমা দিতে পারবেন। অর্থ বিভাগ সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

অর্থ বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব আব্দুর রউফ তালুকদার বলেন, এ ঋণের আওতায় সকল সরকারি কর্মচারীদের আনতে প্রায় ২ বছর সময় লাগবে। সরকারের যেসব মন্ত্রণালয় বা প্রতিষ্ঠান অটোমোশন হয়েছে সেসব প্রতিষ্ঠানের কর্মচারীরা আগামী ১ অক্টোবারেই এ ঋণের জন্য আবেদন করতে পারবে। তবে এখন পর্যন্ত সম্পূর্ণ অটোমশন হয়েছে ৫টি মন্ত্রণালয়।

নতুন নিয়মানুযায়ী সরকারি কর্মকর্তাদের গৃহনির্মাণ ঋণের সুদহার হবে ১০ শতাংশ। এর মধ্যে ৫ শতাংশ সরকার ভর্তুকি হিসেবে প্রদান করবে। বাকি ৫ শতাংশ সুদ সরকারি কর্মকর্তাদের বহন করতে হবে। ঋণ পাওয়ার জন্য প্রণীত নীতিমালা অনুযায়ী প্রাইভেট প্লটের ঋণের জন্য আবেদনপত্রের সাথে বিভিন্ন প্রয়োজনীয় দলিল জমা দিতে হবে।

এর আগে, গত ৩১ জুলাই সরকারি কর্মচারীদের গৃহনির্মাণ ঋণ নীতিমালা প্রজ্ঞাপন আকারে জারি করে অর্থ বিভাগ। নীতিমালা অনুযায়ী, চাকরি স্থায়ী হওয়ার পাঁচ বছর পর থেকে এবং সর্বোচ্চ ৫৬ বছর বয়স পর্যন্ত গৃহঋণের জন্য আবেদন করা যাবে। বেতন স্কেলের গ্রেড-ভেদে সর্বোচ্চ ৭৫ লাখ এবং সর্বনিম্ন ৩০ লাখ টাকা ঋণ নেয়া যাবে। ছয় মাস গ্রেস পিরিয়ডসহ ২০ বছরে এ ঋণ পরিশোধ করতে হবে।

সরকারি কর্মচারীদের গৃহনির্মাণে ঋণের মাধ্যমে অর্থের জোগান দিতে এ নীতিমালা করা হলেও সরকারের আওতাধীন মন্ত্রণালয়, বিভাগ, অধিদফতর, পরিদফতর ও কার্যালয়গুলোতে স্থায়ী পদের বিপরীতে নিয়োগপ্রাপ্ত বেসামরিক কর্মচারীরাও এ সুবিধা পাবেন।

সামরিক, রাষ্ট্রায়ত্ত ও স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান, রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন কোম্পানি, পৃথক বা বিশেষ আইন দ্বারা সৃষ্ট প্রতিষ্ঠানে নিযুক্ত কর্মচারীরা এ নীতিমালার আওতাভুক্ত হবেন না। তবে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ব্যাংক থেকে এ ধরনের গৃহনির্মাণ ঋণসুবিধা পেয়ে থাকেন।