৮৬ বছর পর আয়া সোফিয়ায় প্রথম রমজান

প্রকাশিত: ৭:২১ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৪, ২০২১ | আপডেট: ৭:২১:অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৪, ২০২১

ষষ্ঠ শতাব্দিতে বাইজান্টাইন সাম্রাজ্যের অধিপতি সম্রাট প্রথম জাস্টিনিয়ানের নির্দেশে নির্মিত আয়া সোফিয়া দীর্ঘদিন জাদুঘর হিসেবে সংরক্ষিত থাকলেও গত বছরের জুলাই মাসে সেটিকে মসজিদে রূপান্তরের ঘোষণা দেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগান। তারপর থেকে সেখানে নামাজ আদায় করছেন দেশটির মুসল্লীরা।

তবে ৮৬ বছর পর প্রথম বারের মতো ঐতিহাসিক ঐ মসজিদটিতে পবিত্র রমজানের প্রথম তারাবি অনুষ্ঠিত হয়েছে। করোনা সংক্রমণ রোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করে তা অনুষ্ঠিত হয়। খবর রাশিয়ান টাইমসের।

বিশ্ব স্থাপত্যের অনন্য নিদর্শন আয়া সোফিয়াকে ১৯৩৪ সালের নভেম্বরে কামাল আতাতুর্কের মন্ত্রিপরিষদের জাদুঘর রাখার সিদ্ধান্ত বাতিল করে তুরস্কের সর্বোচ্চ আদালত। তুরস্কের রাষ্ট্রপতি রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে ইস্তাম্বুলের আয়া সোফিয়াকে পুনরায় মসজিদ হিসেবে ব্যবহারের ঘোষণা দেন। গত বছরের ২৪ জুলাই শুক্রবার থেকে সেখানে নিয়মিত নামাজ শুরুর ঘোষণা দেওয়া হয়।

উল্লেখ্য, ৫৬৭ খ্রিস্টাব্দে বাইজান্টাইন সাম্রাজ্যের খ্রিস্টানদের সর্ববৃহৎ গির্জা হিসেবে আয়া সোফিয়া নির্মাণ করা হয়। ১৪৫৩ খ্রিস্টাব্দে মুহাম্মাদ ফাতিহ কনস্টান্টিনোপল বিজয় করে খ্রিস্টানদের কাছ থেকে তা ক্রয় করে ৪৮১ বছর মসজিদ হিসেবে ব্যবহার করেন। ১৯৩৬ সালে আধুনিক তুরস্কের জনক মুস্তফা কামাল আতাতুর্ক এটিকে জাদুঘরে রূপান্তর করেন।