​ভারতকে তুলোধুনা করে ‘পাকিস্তানি’ উসমানের দুই রেকর্ড

প্রকাশিত: ৬:৫০ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৩, ২০১৯ | আপডেট: ৬:৫০:অপরাহ্ণ, মার্চ ১৩, ২০১৯

রাঁচীর পর নয়াদিল্লি। ভারতের বিরুদ্ধে চলতি একদিনের সিরিজের দ্বিতীয় সেঞ্চুরি বুধবার পূর্ণ করলেন উসমান খাজা। একইসঙ্গে দুটো রেকর্ড গড়লেন পাকিস্তানের বংশোদ্ভূত ওপেনোর।

হায়দরাবাদে সিরিজের উদ্বোধনী ম্যাচে ৫০ করেছিলেন বাঁ-হাতি ওপেনার। নাগপুরে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে করেন ৩৮। রাঁচীতে তৃতীয় একদিনের ম্যাচে করেন ১০৪। রবিবার মোহালিতে চতুর্থ একদিনের ম্যাচে তাঁর ব্যাটে আসে ৯১। আর বুধবার ফিরোজ শাহ কোটলায় খোয়াজা করলেন ১০০। পাঁচ ইনিংসে ৭৬.৬০ গড়ে ৩৮৩ রান। স্ট্রাইক রেট ৮৮.৮৬। স্বপ্নের ধারাবাহিকতা।

ভারত সফরে ফর্মের তুঙ্গে রয়েছেন অস্ট্রেলীয় ওপেনার উসমান খাজা। চলমান ওয়ানডে সিরিজে ধারাবাহিক রান করে যাচ্ছেন পাকিস্তানের বংশোদ্ভূত এ ওপেনার। ইসলামাবাদে জন্ম নেয়া অস্ট্রেলীয় নাগরিক খাজা গত শুক্রবার ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ২৪তম ম্যাচে প্রথম সেঞ্চুরির করেন। বুধবার তুলে নেন দ্বিতীয় সেঞ্চুরি।

বুধবার দিল্লির ফিরোজ শাহ কোটলায় ভারতের বিপক্ষে অঘোষিত ফাইনাল ম্যাচেও দুর্দান্ত ব্যাটিং করেন উসমান খাজা। এদিন উদ্বোধনীতে অ্যারন ফিঞ্চের সঙ্গে ৭৬ রানের জুটি গড়েন। ২৭ রানে অধিনায়ক ফিঞ্চ আউট হলেও ব্যাটিং তাণ্ডব অব্যাহত রাখেন খাজা।

এরপর হ্যান্ডসকম্বকে সঙ্গে নিয়ে দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে গড়েন ৯৯ রানের জুটি। এই জুটিতে ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় সেঞ্চুরি তুলে নিয়ে ভুবনেশ্বর কুমারের বলে কোহলির হাতে ক্যাচ তুলে দেন। তার আগে ১০৬ বলে ১০টি চার ও দুটি ছক্কায় ১০০ রান করেন খাজা।

ভারতের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে অসাধারণ ব্যাটিং করেন অস্ট্রেলীয় এই ওপেনার। প্রথম ওয়ানডেতে করে ৫০, রান। দ্বিতীয় ম্যাচে ৩৮। অবশ্য এই দুই ম্যাচে তার দল অস্ট্রেলিয়া হেরে যায়। সিরিজের তৃতীয় ম্যাচে করেন অভিষেক সেঞ্চুরি (১০৪)। তার শতরানের ইনিংসে ভর করে দলও জয়ে ফিরে। ঠিক পরের ম্যাচে দুর্দান্ত খেলেও ৯ রানের জন্য সেঞ্চুরির আক্ষেপ নিয়ে মাঠ ছাড়েন।

এর আগে গত শুক্রবার রনচির ঝাড়খণ্ড রাজ্যে ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ভারতের বিপক্ষে ওয়ানডে ক্যারিয়ারের অভিষেক সেঞ্চুরি করেন উসমান। রবিন্দ্র জাদের করা বলটিকে ফাইন লেগে ঠেলে দিয়ে সিঙ্গেল নেয়ার মধ্য দিয়ে ১০৬ বলে শতরানের মাইলফলক স্পর্শ করেন খাজা।

২০১৩ সালের জানুয়ারিতে ওয়ানডে ক্রিকেটে অভিষেক হওয়া উসমান খাজা, ওই বছর মাত্র তিনটি ম্যাচ খেলার সুযোগ পেয়ে (৩, ৮ ও ৩) মাত্র ১৪ রান করতে সক্ষম হন। প্রত্যাশিত পারফরম্যান্স করতে না পারায় দল থেকে বাদ পড়ে যান।

২০১৬ সালের ফেব্রুয়ারিতে জাতীয় দলে সুযোগ পেয়ে দুর্দান্ত ব্যাটিং করেন। ৬ ম্যাচে (৫০, ৪৪, ২৭, ২, ৫৯, ৯৮) করেন ২৮০ রান। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সেঞ্চুরির সুযোগ পেয়েও তা কাজে লাগাতে পারেননি। মাত্র ২ রানের জন্য শতরানের ম্যাজিক ফিগার স্পর্শ করতে ব্যর্থ হন।

জাতীয় দলে আসা যাওয়ার মধ্যে থাকা উসমান, ভারতের বিপক্ষে চলতি সিরিজে দুর্দান্ত ব্যাটিং করছেন। ভারতের মাঠে অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ধারাবাহিক রান করে যাচ্ছেন তিনি। প্রথম দুই ওয়ানডেতে ৫০ ও ৩৮ রান করা উসমান, শুক্রবার ইনিংসের শুরু থেকেই অসাধারণ ব্যাটিং করেন।

সিরিজের প্রথম দুই ওয়ানডেতে হেরে যাওয়া অস্ট্রেলিয়ার সামনে সমীকরণ ছিল হারলেই ট্রফি হাতছাড়া। এমন কঠিন সমীকরণের সামনে দাঁড়িয়ে শুক্রবার দুর্দান্ত ব্যাটিং করেন অস্ট্রেলীয় দুই ওপেনার অ্যারন ফিঞ্চ ও উসমান খাজা। উদ্বোধনীতে ১৯৩ রানের জুটি গড়েন। মাত্র ৭ রানের জন্য সেঞ্চুরির দেখা পাননি ফিঞ্চ। তার বিদায়ের পর সেঞ্চুরি তুলে নেন উসমান।

তবে শতরান করার পর নিজের ইনিংসটা লম্বা করতে পারেননি। মোহাম্মদ সামির বলে মিড উইকেটে দাঁড়িয়ে থাকা যশপ্রীত বুমরাহর হাতে ক্যাচ তুলে দেয়ার আগে ১১৩ বলে ১১টি চার ও একটি ছক্কার সাহায্যে ১০৪ রান করে ফেরেন উসমান খাজা।

টেস্ট ক্রিকেটে অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ৮টি সেঞ্চুরিতে ২ হাজার ৭৬৫ রান করা উসমান, শুক্রবার ওয়ানডেতে পেলেন প্রথম সেঞ্চুরি।