The Bangladesh Today | Uniting people everyday

ঢাকা বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২

মসজিদে নববিতে শেহবাজের বিরুদ্ধে স্লোগান, ৬ পাকিস্তানির কারাদণ্ড

মসজিদে নববিতে শেহবাজের বিরুদ্ধে স্লোগান, ৬ পাকিস্তানির কারাদণ্ড

সউদী আরবের পবিত্র মদিনা নগরীর মসজিদে নববিতে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরিফ ও তার সফরসঙ্গীদের বিরুদ্ধে স্লোগান দেওয়ার অভিযোগে ৬ পাকিস্তানিকে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

গত বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) সউদী আরবের একটি আদালত বিভিন্ন মেয়াদে পাকিস্তানের ৬ নাগরিককে এই কারাদণ্ড দেন।

মূলত শেহবাজ শরিফ ও তার প্রতিনিধিদলের সদস্যদের বিরুদ্ধে স্লোগান দিয়ে মদিনা নগরীর মসজিদে নববিকে অভিযুক্তরা অপবিত্র করেছেন বলে রায়ে জানিয়েছে আদালত।

গত শুক্রবার (৫ আগস্ট) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম দ্য নিউজ ইন্টারন্যাশনাল।

রায় ঘোষণার সময় সউদী আদালত বলেন, হারাম-ই-মদিনায় ব্লাসফেমির অভিযোগে ছয় পাকিস্তানিকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে। দেশটির মিডিয়া রিপোর্ট অনুসারে, অভিযুক্তদের মধ্যে তিনজন পাকিস্তানির প্রত্যেককে ১০ বছরের কারাদণ্ড এবং বাকি তিনজন পাকিস্তানিকে ৮ বছর করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

দ্য নিউজ ইন্টারন্যাশনাল-এর প্রতিবেদনে অনুযায়ী, ১০ বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হওয়া তিন পাকিস্তানি হচ্ছেন- আনাস, ইরশাদ এবং মুহাম্মদ সেলিম। এছাড়া ৮ বছরের কারাদণ্ডপ্রাপ্ত অন্য তিনজন হচ্ছেন- খাজা লুকমান, মুহাম্মদ আফজাল এবং গোলাম মুহাম্মদ।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, পাকিস্তানের তথ্য ও সম্প্রচারের মন্ত্রণালয়ের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মরিয়ম আওরঙ্গজেব এবং অন্যান্য মন্ত্রীদের সঙ্গে দুর্ব্যবহারের জন্য দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় ওই ছয় জনকে ২ লাখ রিয়াল জরিমানাও করেছেন মদিনা আদালত। একইসঙ্গে অভিযুক্তদের মোবাইল ফোনও বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের এপ্রিল মাসের শেষের দিকে তিন দিনের এক রাষ্ট্রীয় সফরে প্রতিনিধিদলসহ সউদী আরব গিয়েছিলেন সেসময় সদ্যই দায়িত্ব নেওয়া পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরিফ। দেশটির কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মরিয়ম আওরঙ্গজেব ও শাহজাইন বুগতিও ছিলেন সেই প্রতিনিধিদলে।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর পদে আসীন হওয়ার পর এটিই ছিল শেহবাজ শরিফের প্রথম বিদেশ সফর। এছাড়া তার সউদী সফরের সময় পবিত্র রমজান মাস চলছিল।
পাকিস্তান ও সউদী আরবের সংবাদমাধ্যমগুলোর বরাত দিয়ে একাধিক সংবাদমাধ্যম সেসময় জানায়, গত ২৯ এপ্রিল শুক্রবার শেহবাজ শরিফ তার প্রতিনিধি দলের সঙ্গে মদিনার মসজিদে নববিতে নামাজ পড়তে যান। সেসময় মসজিদের ভেতরেই বেশ কয়েকজন পাকিস্তানি নাগরিকের তোপের মুখে পড়েন শেহবাজ ও তার দলের সদস্যরা।

একপর্যায়ে বিক্ষুব্ধরা শেহবাজ শরিফের উদ্দেশে ‘চোর, চোর’ স্লোগান দেওয়া শুরু করেন। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সেসময় ছড়িয়ে পড়া এ সম্পর্কিত একটি ভিডিওতে দেখা গেছে, শেহবাজ শরিফকে ‘চোর’ বলার পাশপাশি প্রতিনিধি দলে থাকা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মরিয়ম আওরঙ্গজেবের উদ্দেশে বিক্ষুব্ধরা অশালীন স্লোগান দিতে থাকেন এবং শাহজাইন বুগতিকে শারীরিকভাবে হেনস্তা করার চেষ্টা করেন।

অবশ্য তাদের নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা পুলিশ সদস্যদের সক্রিয় তৎপরতার কারণে দ্রুত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। এই ঘটনার পর বেশ কয়েকজন পাকিস্তানিকে আটক করে সউদী নিরাপত্তা বাহিনী। সর্বশেষ গত শুক্রবার অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে রায় ঘোষণা করলেন দেশটির আদালত।