The Bangladesh Today | Uniting people everyday

ঢাকা বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২

চীনের বিরুদ্ধেই এবার সেই অভিযোগ আনল যুক্তরাষ্ট্র

চীনের বিরুদ্ধেই এবার সেই অভিযোগ আনল যুক্তরাষ্ট্র

ন্যান্সি পেলোসির তাইওয়ান সফর কেন্দ্র করে ওয়াশিংটন ও বেইজিংয়ের মধ্যে উত্তেজনা চলছে। এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে উস্কানির অভিযোগ এনেছিল চীন। তবে এবার যুক্তরাষ্ট্রের তরফ থেকেই চীনের বিরুদ্ধে আনা হয়েছে উস্কানিমূলক ও দায়িত্বজ্ঞানহীন আচরণ করার অভিযোগ।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স রোববার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে। রয়টার্স জানায়, তাইওয়ানেরর আশেপাশে চীনের কর্মকাণ্ডকে উস্কানিমূলক এবং দায়িত্বজ্ঞানহীন বলে মন্তব্য করেছে হোয়াইট হাউস।  

হোয়াইট হাউসের এক মুখপাত্র জানান, চীনের এ ধরনের কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে স্থিতাবস্থা বদল করার চেষ্টা চালানো হচ্ছে। ওদের আচরণ উস্কানিমূলক, দায়িত্বজ্ঞানহীন। বিষয়টি ভুলদিকে চলে যাওয়ার ঝুঁকি বাড়ায়। 

তিনি আরও বলেন, তাইওয়ান প্রণালী জুড়ে শান্তি ও স্থিতিশীলতা বজায় রাখার জন্য আমাদের দীর্ঘস্থায়ী লক্ষ্যের সঙ্গেও চীনের মেলে না। 

এর আগে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র হুয়া চুনয়িং এক নিয়মিত ব্রিফিংয়ে বলেন, তাইওয়ানের কাছে সাগরে চীনা সেনাবাহিনীর সামরিক মহড়া জাতীয় সার্বভৌমত্বকে দৃঢ়ভাবে রক্ষা করার জন্য একটি প্রয়োজনীয় এবং ন্যায়সঙ্গত পদক্ষেপ। 

তিনি আরও বলেন, পেলোসির তাইওয়ান সফরকে ঘিরে বর্তমান পরিস্থিতিতে  যুক্তরাষ্ট্র উস্কানিদাতা, চীন ভিকটিম। যুক্তরাষ্ট্র এবং তাইওয়ানের যৌথ উস্কানি প্রথমে এসেছিল, চীনের ন্যায়সঙ্গত প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা পড়ে এসেছে। 

প্রসঙ্গত, চীনের শত হুমকি উপেক্ষা করে গত মঙ্গলবার তাইওয়ান সফরে যান মার্কিন হাউস স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি। তার এই সফরের পরই তাইওয়ানের চারপাশে ‘সর্ববৃহৎ’ সামরিক মহড়া শুরু করে বেইজিং। তাইওয়ানের পক্ষ থেকে  অভিযোগ করা হয়েছে, তাইওয়ানে কিভাবে হামলা করা হবে শনিবার এই মহড়া দিয়েছে চীন। 

শনিবার তারা বৃহত্তম মহড়া চালায়। তাইওয়ানে আক্রমণ করা হলে কিভাবে এটিকে আটকানো হবে সেই প্রস্তুতিই এখন নিচ্ছে তারা। 

এদিন তাইওয়ানের পক্ষ থেকে জানানো হয়, বেশ কয়েকটি চাইনিজ বিমান এবং জাহাজ তাইওয়ান প্রণালীতে অবস্থান করছে। তাইওয়ানের বিশ্বাস- কিভাবে আক্রমণ পরিচালনা করা হবে এটি তারই অনুশীলন। 

এ ব্যাপারে তাইওয়ানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে, তাইওয়ান প্রণালীতে চীনের বিমানের একাধিক ব্যাচ এবং জাহাজ কার্যক্রম পরিচালনা করছে। যেগুলোর কিছু তাইওয়ান-চীনের মধ্যবর্তী সমুদ্রসীমা অতিক্রম করেছে।

এদিকে বর্তমানে তাইওয়ানের চারপাশ ঘিরে ছয়টি স্থানে সামরিক প্রশিক্ষণ চালাচ্ছে চীন। এবারের প্রশিক্ষণের মধ্যে লাইভ-ফায়ারিং পরীক্ষা করছে তারা। 

তাছাড়া শুক্রবার তাইওয়ানের ওপর দিয়ে মিসাইলও ছোঁড়ার কথাও জানায় চীন।