The Bangladesh Today | Uniting people everyday

ঢাকা বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২

‘এই সিনেমা দিয়ে ইন্ডাস্ট্রির কোনো লাভ নেই’

‘এই সিনেমা দিয়ে ইন্ডাস্ট্রির কোনো লাভ নেই’
সংগৃহীত

অনন্ত জলিলের শতকোটি টাকার সিনেমা ‘দিন : দ্য ডে’ নিয়ে মন্তব্য করেছেন খল অভিনেতা মিশা সওদাগর। তিনি মনে করেন, ‘দিন : দ্য ডে’ শৌখিন প্রজেক্ট, ইন্ডাস্ট্রির প্রজেক্ট না।

এরকম সিনেমা নির্মাণ করলে ঢাকাই সিনেমা ইন্ডাস্ট্রির জন্য বিন্দুমাত্র লাভ নেই। গণমাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এই অভিনেতা বলেন, ‘দিন : দ্য ডে’ নিয়ে কথা বলার কি আছে। এই সিনেমা দিয়ে ইন্ডাস্ট্রির কোন লাভ নেই।

১২০ কোটি টাকার সিনেমা আমাদের এখানে বানানোর সম্ভব নয়। এত টাকার সিনেমা চলবে কোথায়, টাকাটা উঠবে কীভাবে? কাজেই এটা নিয়ে আমার কোন মাথা ব্যাথা নেই।

এছাড়া এই সিনেমায় প্রফেশনাল কোন শিল্পী নেই। ওনারা সাধারণত শৌখিন শিল্পী। ‘দিন : দ্য ডে’ শৌখিন প্রজেক্ট উল্লেখ করে মিশা সওদাগর বলেন, অনন্ত ভাই একজন বড় পর্যায়ের ব্যবসায়ী।

তিনি একজন সিআইপি (বাণিজ্যিক গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি)। তার কারখানায় ১২ থেকে ১৩ হাজার লোক কাজ করে। তিনি ভালো লাগা থেকেই তার স্ত্রীকে নিয়ে সিনেমা বানান। এই সিনেমা দিয়ে আমার ইন্ডাস্ট্রির বিন্দুমাত্র লাভ নাই।

ইন্ডাস্ট্রির লাভ পরাণ, হাওয়া, শান, গলুই দিয়ে। ‘দিন : দ্য ডে’ শৌখিন প্রজেক্ট, ইন্ডস্ট্রির প্রজেক্ট না। অনন্ত জলিলকে পরামর্শ দিয়ে মিশা সওদাগর আরো বলেন, অনন্ত ভাইয়ের উচিৎ একটা স্টুডিও করা। একটা প্রোডাকশন হাউজ করতে পারে।

শাহরুখ খানের যেমন ‘রেড চিলি’। তার প্ক্ষেও সম্ভব। উনি (অনন্ত জলিল) ২০-২৫ জনের একটা স্পেশাল টিম করে দিতে পারে। যারা গল্প লিখবে, নতুন নির্মাতা থাকবে, মিডিয়ায় যারা আছে এবং আমাদের ১৮ সংগঠনে যারা আছে তাদের নিয়ে একটা প্রোজেক্ট করে দিতে পারে।

এর মাধ্যমে নতুন নির্মাতা, শিল্পী উঠে আসবে। দর্শক নিজের সাংস্কৃতিকে পছন্দ করে উল্লেখ করে তিনি বলেন, অনন্ত জলিল ভাই ১২০ কোটি টাকার সিনেমা নির্মাণ করলেন। মানুষ চোখে দেখলো কিন্ত পরাণে লাগলো না।

সেল কিন্ত তাই বলছে। মানুষ বিদেশি লোক, বিদেশি সিনেমাকে পছন্দ করে না। বাঙালি স্বাধীনতায় বিশ্বাসী, নিজেদের সংস্কৃতিতে বিশ্বাস করে। ‘দিন : দ্য ডে’ সিনেমায় অনন্ত জলিলকে আন্তর্জাতিক সংস্থার একজন পুলিশ কর্মকর্তার চরিত্রে দেখা গেছে।

নানা সন্ত্রাসগোষ্ঠী দমনে অভিযানে অংশ নেন তিনি। এতে তার বিপরীতে অভিনয় করেছেন বর্ষা। সিনেমাটি নির্মাণ করেছেন ইরানি পরিচালক মুর্তজা অতাশ জমজম।