#MeToo: অডিশনের নামে আচমকাই জড়িয়ে ধরে চুমু খেয়েছেন পাভেল

টিবিটি টিবিটি

বিনোদন ডেস্ক

প্রকাশিত: ৮:০০ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৯ | আপডেট: ৮:০০:অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১০, ২০১৯
ছবিঃ সংগৃহিত

#MeToo ঝড় আছড়ে পড়ল টালিউডেও। সোশ্যাল মিডিয়ায় চিত্রপরিচালকের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন অভিনেত্রী অনুরূপা চক্রবর্তী। ‘রসগোল্লা’-র কারিগর পাভেলের বিরুদ্ধে উঠল অডিশনের নামে অশালীন আচরণের অভিযোগ। যদিও অভিনেত্রীর অভিযোগ নস্যাৎ করে দিয়েছেন পরিচালক।

সংবাদ প্রতিদিন পত্রিকার খবরে বলা হয়, ফেসবুক প্রোফাইলে পাভেলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন অভিনেত্রী অনুরূপা। তিনি লেখেন, ‘রসগোল্লায় কাজ দেওয়ার নাম করে পাভেল আমাকে অডিশনে ডাকে। আমি আসি। সামান্য কথা হয়।

এরপর একদিন আমাকে পাভেল মেসেজ করেন। ওই মেসেজে লেখা ছিল আমি নাকি পাওলি দামের মতো দেখতে। ‘রসগোল্লা’-য় তাই আমাকে বাছা হয়েছে। এরপর নাকতলায় ডাকেন পাভেল।

নাকতলায় একটি ফ্ল্যাটের ভিতর পাভেল আমার হাতে স্ক্রিপ্ট দেন। সেদিন একটুও মেকআপ করিনি আমি। চুলে তেল, ঢিলেঢালা পোশাকেই গিয়েছিলাম পাভেলের কাছে। কিছুক্ষণ কথাবার্তার পর আচমকাই পাভেল আমাকে জড়িয়ে ধরেন। চুমু খেতেও শুরু করেন। কোনওক্রমে আমি তাকে থামাই।’

অভিনেত্রীর অভিযোগ, এখানেই থেমে যাননি পাভেল। এরপরও একাধিকবার মেসেজে পাভেলের সঙ্গে কথা হয় অনুরূপার। অভিনেত্রীর দাবি, মেসেজে নিজের স্ত্রীকে নিয়ে নানা কথা বলেছিলেন পাভেল। তার দাম্পত্য জীবন সুখের নয় বলেও অনুরূপাকে জানান।

এমনকী, মেসেজেই অনুরূপাকে বিয়েরও প্রস্তাব দেন পাভেল। এরপরই তাদের পরিচিতদের সঙ্গে কথা বলেন অনুরূপা। তাতেই মন ভেঙে যায় অভিনেত্রীর। তিনি জানতে পারেন, পাভেলের সঙ্গে তার স্ত্রীর সম্পর্ক বেশ ভাল।

এসব জানার পর বিয়ের প্রস্তাব খারিজ করে দেন অনুরূপা। অভিনেত্রীর অভিযোগ, বিয়ের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় পাভেল তাকে কাজ করতে না দেওয়ার হুমকি দিয়েছেন।

ক্রমাগত চাপের জেরে মানসিক অবসাদে ভুগছেন অনুরূপা। তাই বাধ্য হয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় পাভেলের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন তিনি। যদিও অনুরূপার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন পাভেল। স্বপক্ষে তার পালটা যুক্তি, ‘এতদিন কেন মুখ বুজে সব কিছু সহ্য করলেন অনুরূপা? মেসেজেই বা কেন কথোপকথন বজায় রেখেছিলেন তিনি?’ তবে এ বিষয়ে এখনও কোনও প্রতিক্রিয়া মেলেনি অনুরূপার।