The Bangladesh Today | Uniting people everyday

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

শ্রীপুরে গায়েপেট্রোল দিয়ে আগুনে পুরিয়ে হত্যা মামলার আসামি গ্রেপ্তার

শ্রীপুরে গায়েপেট্রোল দিয়ে আগুনে পুরিয়ে হত্যা মামলার আসামি গ্রেপ্তার
ছবি: টিবিটি
রাজীব প্রধান, গাজীপুর প্রতিনিধি: গাজীপুরের শ্রীপুরে সেই লোমহর্ষক বর্বরতা গায়ে পেট্রোল দিয়ে আগুনে  পুরিয়ে মারার ঘটনায় হত্যা মামলার প্রধান দুই নাম্বার আসামী মোফাজ্জল সরকারকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। কালিয়াকৈর ও শ্রীপুরের সার্কেল এসপি আল-মামুনের নেতৃত্বে ও পুলিশ পরিদর্শক (ওসি অপারেশন) গোলাম সারোয়ার ও সংঙ্গীয় এস আই সাজিদ  এর সহায়তা বিভিন্ন জেলায় অভিযানের পর শুক্রবার রাতভর অভিযান চালিয়ে ভোর সকাল অনুমান ৪ টার দিকে আসামি মোফাজ্জলকে পাবনা জেলার আট ঘরিয়া উপজেলার সালাউদ্দিনের বাড়ি থেকে আটক করা হয়। 
 
ঘটনা সুএে জানাযায়, গত বৃহস্পতিবার২২ জুলাই রাতে শ্রীপুরের তেলিহাটি মোড় এলাকায় গ্যাস সিলিন্ডার কিনতে আসেন স্থানীয় প্রভাবশালী তোফাজ্জল সরকার। দাম বেশি চাওয়া হয়েছে,এমন অভিযোগে দোকানদার মোজাম্মেলের সঙ্গে কথা কাটাকাটির পর দলবল নিয়ে তাদের শরিরে পেট্রোল দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয় অভিযুক্তরা।এতে মোজাম্মেল ও তার ছোট ভাই আরিফ দগ্ধ হয়। পরবর্তীতে আগুনে দগ্ধ হওয়া আরিফ মারা যায় গত ২৬ জুলাই।  চারদিন মৃত্যুর সঙ্গে লড়ে শেখ হাসিনা বার্ন ইউনিটের আইসিইউতে  মৃত্যু হয় তার। 
 
বাকি আহত ৫ জনের মধ্যে দোকানি  মোজাম্মেল,সাখাওয়াত রুবেল ও সজিব এখনো মুমূর্ষু অবস্থা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে।
 
এবিষয়ে ঘটনার দিনই তিনজনকে প্রধান আসামি করে  শ্রীপুর মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন ব্যবসায়ী তোফাজ্জল। অভিযুক্তরা হলেন,১) তোফাজ্জল সরকার, ২)মোফাজ্জল সরকার ৩) তাজউদ্দীন সরকার। নিহতের ঘটনায় পরবর্তীতে একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়। যার মামলা নং-৩৫(৭)২১।
 
এবিষয়ে শ্রীপুর মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) গোলাম সারোয়ার জানান, হত্যা মালার ঘটনায় ,সার্কেল আল-মামুন স্যারের নেতৃত্বে  ৬ দিনের অভিযানের পর পলাতক থাকা অবস্থায় ২ নাম্বার আসামি মোফাজ্জল সরকারকে, পাবনা জেলার আট ঘরিয়া উপজেলার সালাউদ্দিনের বাড়ি শুক্রবার ভোর ৪ টার দিকে আটক করা হয়। 
 
আটকের বিষয়ে শ্রীপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি খন্দকার ইমাম হোসেন বলেন, আগুনে পুরিয়ে মারায় হত্যা মালার দুই নাম্বার আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এবং বাকি আসামিদের ধরার চেষ্টা চলছে। আশা করছি দূত সময়ের মধেই বাকি আসামিদের ধরা হবে। 

আরও পড়ুন