The Bangladesh Today | Uniting people everyday

ঢাকা সোমবার, ২৩ মে ২০২২

মাদ্রাসা ছাত্রকে যৌন নির্যাতন, শিক্ষক কারাগারে

মাদ্রাসা ছাত্রকে যৌন নির্যাতন, শিক্ষক কারাগারে
ফাইল ছবি

রাজশাহীর বাগমারা উপজেলায় ৯ বছরের ছাত্রকে ধর্ষণের অভিযোগে এক মাদ্রাসা শিক্ষককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। শুক্রবার সকালে ওই শিক্ষককে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে ওই শিক্ষককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

গ্রেপ্তার শাকিল আহমেদ (২০) বাগমারা উপজেলার স্থানীয় একটি হাফেজিয়া মাদ্রাসার শিক্ষক।

জানা গেছে, এই হাফেজিয়া মাদ্রাসায় দীর্ঘদিন ধরে শিশুশিক্ষার্থীদের কোরআন শিক্ষার কার্যক্রম চলে আসছে। আশপাশের শিশুশিক্ষার্থীরা সেখানে থাকে। মাদ্রাসার কর্তৃপক্ষ সেখানে তাদের থাকা-খাওয়াসহ সব ব্যবস্থা করেন। এজন্য দুজন শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হয়। বুধবার (১৯ জানুয়ারি) মাদ্রাসার নয় বছরের এক ছাত্রকে এই শিক্ষক নিজ কক্ষে ডেকে নেন।

পরে ওই ছাত্রকে তার কক্ষেই যৌন নির্যাতন করেন। এরপর ঘটনাটি কাউকে বললে প্রাণে মেরে ফেলা হবে বলেও ওই ছাত্রকে হুমকি দেন তিনি। কিন্তু শিক্ষকের পাশবিক নির্যাতনের শিকার ছাত্র কৌশলে মাদ্রাসা থেকে পালিয়ে বাড়ি চলে যায়।

সে বাড়ি গিয়ে অভিভাবকদের কাছে পুরো ঘটনাটি খুলে বলে। এরপর তার পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় অভিযোগ দেওয়া হয়। অভিযোগের পর বাগমারা থানা পুলিশ মাদ্রাসায় অভিযান চালায়। এ সময় মাদ্রাসা থেকে অভিযুক্ত শিক্ষক শাকিলকে পুলিশ গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসে।

রাজশাহীর বাগমারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাক আহম্মেদ বলেন, পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতার শিক্ষক নিজের অপরাধের কথা স্বীকার করেছেন। এ ঘটনায় গতকাল বৃহস্পতিবার (২০ জানুয়ারি) রাতেই নির্যাতনের শিকার ওই শিশুর বাবা থানায় মামলা করেছেন। ওই মামলায় দুপুরে তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া এ ঘটনায় অসুস্থ ওই শিশুকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান- বাগমারা থানার এই পুলিশ কমকর্তা।