The Bangladesh Today | Uniting people everyday

ঢাকা সোমবার, ২৩ মে ২০২২

আমি যে কত এতিম, বোঝাতে পারব না: জায়েদ খান

আমি যে কত এতিম, বোঝাতে পারব না: জায়েদ খান
ছবিঃ সংগৃহীত

আজ অনুষ্ঠিত হয়েছে শিল্পী সমিতির নির্বাচনে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী অভিনেতা মিশা সওদাগর ও জায়েদ খানের প্যানেল পরিচিতি অনুষ্ঠান।রাজধানীর একটি কনভেনশন হলে তাদের প্যানেল পরচিতি হয়ে গেল। এ সভায় মা নেই, বাবা নেই বলে নিজেকে এতিম দাবি করে কেঁদে ফেলেন জায়েদ খান।

সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী জায়েদ খান বলেছেন, ‘সদ্য আমার মা মারা গিয়েছেন। বাবাকেও হারিয়েছি অনেক আগে। আমি এখন এতিম। এই শিল্পী সমিতিই আমার সব। সমিতির সদস্যরাই আমার পরিবার। সিনিয়র শিল্পীরা আমার বাবা-মা।’

জায়েদ খান আরও বলেন, ‘আমি যে কতটা এতিম এখন, বোঝাতে পারব না। আমার মা মরার আগে বলে গেছেন, তোমার আর বিয়েশাদি লাগবে না। তুমি শিল্পী সমিতি নিয়েই থাকো। শিল্পী সমিতি এখন আমার ভালোবাসার জায়গা হয়ে গেছে, তাই এত শত্রু। যে শিল্পী সমিতিতে আমি এসে দেখেছি নিজের টাকা দিয়ে চা খেতে হয়, সেখানে এখন ২টা কফির মেশিন আছে। এটা মিশা-জায়েদ পরিষদের অবদান। ৩টা ফ্রিজ আছে সমিতিতে, ২১টা লাইট জ্বলে। এসব আমরা করেছি। এত কাজ করে অনেকের চক্ষুশূল হয়ে গেছি।’

আপনাদের অনুরোধ, যদি ভালো কাজ করে থাকি আমাকে ভোট দিন। মিশা-জায়েদের পুরো প্যানেলকে জয়যুক্ত করুন। অনেকগুলো ভালো কাজের ভিড়ে কিছু ‍ভুল থাকতেই পারে। সেগুলো ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখে আমাদের ভোট দিন বলেও উপস্থিত সবাইকে অনুরোধ করেন জায়েদ খান।

এসময় বিগত দুই মেয়াদে সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালনকালে শিল্পীদের উন্নয়নে কি কি কাজ করেছেন তার একটা সংক্ষিপ্ত বর্ণনাও এসময় তুলে ধরেন এই নায়ক।

তিনি বলেন, শিল্পী সমিতির আমূল পরিবর্তন এসেছে আমাদের হাত ধরে। করোনার মহামারির মধ্যে যেসব শিল্পী মারা গেছেন তাদের লাশ মৃত্যুকে ভয় না করে আমি আর মিশা ভাই দাফনের ব্যবস্থা করেছি। প্রধানমন্ত্রী থেকে শিল্পীদের কল্যাণে ফান্ড এনেছি। আমাগীতেও শিল্পীদের পাশে থাকতে চাই।