The Bangladesh Today | Uniting people everyday

ঢাকা শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১

শিরোনাম
  • সোনালী পেপারের ৪০ শতাংশ লভ্যাংশ ঘোষণা অর্ধেক দামে নতুন পণ্য দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে প্রায় অর্ধ কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ শ্রীমঙ্গলে রেলের জমি পুনরুদ্ধার অভিযানের এক্সাভেটরে দুর্বৃত্তে আগুন পুঠিয়ায় পুকুরে বিষ প্রয়োগ করে মাছ নিধনের অভিযোগ ১০ টাকার জন্য রিকশা চালককে কুপিয়ে হত্যা সান্তাহারে ২০ শয্যা হাসপাতাল চালুর দাবীতে মানববন্ধন সাংবাদিক নেতাদের ব্যাংক হিসাব তলব ‘উদ্দেশ্যমূলক’: জবিসাস নড়াইলে প্রাইভেটকার পানিতে, খাশিয়াল ইউপি চেয়ারম্যানসহ নিহত ২ ‘বাথরুম’ হিসেবে ব্যবহার হচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া নৌ অ্যাম্বুলেন্স! কিস্তির টাকা চাওয়ায় ব্যাংক কর্মকর্তার বাসায় হামলা
  • জুলাইয়ে কমেছে রেমিট্যান্স

    জুলাইয়ে কমেছে রেমিট্যান্স
    ফাইল ছবি

    হঠাৎ কমে গেছে রেমিট্যান্স। চলতি বছরের জুলাই মাসে দেশে প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্স এসেছে ১৮৭ কোটি ১৪ লাখ ৯০ হাজার (১ দশমিক ৮৭ বিলিয়ন) মার্কিন ডলার । টাকার হিসাবে যার পরিমাণ ১৫ হাজার ৯০৭ কোটি টাকা। যা গেল জুন মাসের চেয়ে ছয় কোটি ৯৩ লাখ ডলার কম। এছাড়া ২০২০ সালের জুলাই মাসের তুলনায় ২৭ দশমিক ৯৭ শতাংশ কম।

    সোমবার (২ আগস্ট) বাংলাদেশ ব্যাংক এবিষয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করে।

    বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, জুলাই মাসে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে রেমিট্যান্স আহরিত হয়েছে ৪৩ কোটি ১৮ লাখ ডলার। বিশেষায়িত দুটি ব্যাংকের মাধ্যমে ৩ কোটি ২২ লাখ ডলার রেমিট্যান্স এসেছে। এছাড়া বেসরকারি ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে ১৪০ কোটি ১২ লাখ ডলার এবং বিদেশি ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে ৬১ লাখ ডলার রেমিট্যান্স এসেছে।

    এবারও ইসলামী ব্যাংকের মাধ্যমে সবচেয়ে বেশি রেমিট্যান্স আহরিত হয়েছে। ব্যাংকটির মাধ্যমে রেমিট্যান্স আহরিত হয়েছে ৫৫ কোটি মার্কিন ডলার। এছাড়া ডাচ-বাংলা ব্যাংকের মাধ্যমে এসেছে ২২ কোটি ৯১ লাখ ডলার রেমিট্যান্স। অগ্রণী ব্যাংকের মাধ্যমে ১৯ কোটি ৪৮ লাখ ডলার, সোনালী ব্যাংকের মাধ্যমে ১১ কোটি ৭৫ লাখ ডলার এবং জনতা ব্যাংকের মাধ্যমে ৫ কোটি ৯২ লাখ ডলার রেমিট্যান্স আহরিত হয়েছে।

    কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য বলছে, গত ২০২০-২১ অর্থবছরে দুই হাজার ৪৭৭ কোটি ৭৭ লাখ মার্কিন ডলার রেমিট্যান্স দেশে আসে। যা আগের অর্থবছরের চেয়ে ৩৬ দশমিক ১০ শতাংশ বেশি। এর আগে কোনো অর্থবছরে এত পরিমাণ রেমিট্যান্স আসেনি বাংলাদেশে। ২০১৯-২০ অর্থবছরে এক হাজার ৮২০ কোটি ডলার রেমিট্যান্স পাঠিয়েছিলেন প্রবাসীরা। অর্থবছর হিসাবে যা বাংলাদেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স আহরণ। তারও আগে ২০১৮-১৯ অর্থবছরে দেশে রেমিট্যান্স আহরণের রেকর্ড হয়। ওই সময় এক হাজার ৬৪২ কোটি ডলার রেমিট্যান্স আসে দেশে।

    এদিকে রেমিট্যান্সে প্রবাহ বাড়াতে প্রবাসী আয়ে এক শতাংশ প্রণোদনা বাড়ানোর প্রস্তাব দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। বর্তমানে প্রবাসী আয়ে দুই শতাংশ প্রণোদনা দিচ্ছে সরকার। এটাকে তিন শতাংশ করতে সম্প্রতি বাংলাদেশ ব্যাংক এ সংক্রান্ত একটি চিঠি অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগে পাঠিয়েছে।


    সর্বশেষ