The Bangladesh Today | Uniting people everyday

ঢাকা রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১

গৌরীপুরে জমি সংক্রান্ত বিরোধে জাকের পার্টির সম্পাদক নিহত

গৌরীপুরে জমি সংক্রান্ত বিরোধে জাকের পার্টির সম্পাদক নিহত

শফিকুল ইসলাম মিন্টু, গৌরীপুর (ময়মনসিংহ) সংবাদদাতা : জমি সংক্রান্ত বিরোধে ময়মনসিংহের গৌরীপুর উপজেলা জাকের পার্টির সাধারণ সম্পাদক আবু হানিফ ফকির (৫৬) নিহতের ঘটনায় মামলা হয়েছে। রোববার নিহতের ছেলে আবুল কাইয়ুম রনি বাদী হয়ে গৌরীপুর থানায় মামলাটি দায়ের করেন।

এর আগে শুক্রবার জমিসংক্রান্ত বিরোধে প্রতিপক্ষের হামলায় আবু হানিফ ফকির নিহত হয় এমন অভিযোগ পরিবারের। নিহত ব্যক্তি উপজেলার অচিন্তপুর ইউনিয়নের ফকিরপাড়া গ্রামের মৃত ওমর আলীর ছেলে।

স্থানীয় ও মামলা সূত্রে জানা গেছে, জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে আবু হানিফ ফকিরের পরিবারের সাথে বিরোধ ছিল একই গ্রামের আব্দুল ওয়াহেদ আলী ফকিরের (৬৮) পরিবারের। 

চলতি আমন মওসুমে ধান চাষাবাদ করার জন্য হানিফ প্রতিবেশী রিয়াজ উদ্দিনের কাছ থেকে জমি লিজ নিয়ে বীজতলা করেন। শুক্রবার সকালে হানিফ শ্রমিকদের নিয়ে ওই বীজতলা থেকে ধানের চারা উত্তোলন করতে গেলে প্রতিপক্ষ আব্দুল ওয়াহেদের লোকজন বাঁধা দেয়। এসময় দুপক্ষের বাক-বিতন্ডা শুরু হলে প্রতিক্ষের লোকজন হামলা করে হানিফকে বুকে ধাক্কা দিলে সে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। পরে পরিবারের লোকজন হানিফকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে। 

এদিকে আবু হানিফ ফকির নিহতের ঘটনায় রোববার গৌরীপুর থানায় মামলা হয়েছে। মামলায় আসামি করা হয়েছে আবদুল ওয়াহেদ ফকির তার দুই ছেলে আশরাফুল আলম ফকির (৩৫) ও খোরশেদ আলম ফকির (৩২) সহ  ৬জনকে। 

নিহতের ছেলে আব্দুল কাইয়ুম রনি বলেন, বীজতলার ধানের চারা বিরোধপূর্ণ জমিতে রোপন করা হবে এই ধারণা থেকে ওয়াহেদের লোকজন বাবার উপর হামলা চালায়। এসময় ওয়াহেদের ছেলে আশরাফুল আলম  আমার বাবাকে সজোরে ধাক্কা দিয়ে মাটিতে ফেলে দেয়। পরে তাদের লোকজন চর, থাপ্পর, লাথি দিলে বাবা জ্ঞান হারিয়ে ফেলে।

উপজেলা জাকের পার্টির সহসভাপতি গোলাম মোহাম্মদ বলেন, আবু হানিফ ফকির নিহতের ঘটনায় তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জ্ঞাপন করছি। সুষ্ঠু তদন্ত করে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

গৌরীপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) খান আব্দুল হালিম সিদ্দিকী বলেন, আবু হানিফ ফকির নিহতের ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। পুলিশ মামলা তদন্ত করার পাশাপাশি আসামি ধরার চেষ্টা চালাচ্ছে। তবে ময়নাতদন্ত রিপোর্ট না পাওয়া পর্যন্ত মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে কোন মন্তব্য করা যাচ্ছেন।