The Bangladesh Today | Uniting people everyday

ঢাকা সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১

বিষাক্ত বলিউডের চেয়ে তামিল ইন্ডাস্ট্রি ঢের ভালো : কঙ্গনা

বিষাক্ত বলিউডের চেয়ে তামিল ইন্ডাস্ট্রি ঢের ভালো : কঙ্গনা
বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত। ছবি: সংগৃহীত

বিতর্কের রানি হিসেবে হিন্দি সিনেমার জগতে ব্যাপক পরিচিতি রয়েছে অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত। নানারকম কর্মকাণ্ড ও বিতর্কিত মন্তব্যের কারণে সারা বছরই তিনি থাকেন আলোচনার কেন্দ্রে। সেই ধারাবাহিকতায় বলিউড বিষাক্ত তকমা দিয়ে তিনি জন্ম দিলেন নতুন বিতর্কের। কিন্তু কেন?

অভিনেত্রীর মতে, তামিল ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির তুলনায় বলিউড অনেকটাই ভালোবাসাহীন, সহানুভূতিহীন। সম্প্রতি দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলিউডের বিরুদ্ধে এভাবেই ক্ষোভ উগরে দেন কঙ্গনা।

অভিনেত্রীর ভাষ্য, ‘বিষাক্ত বলিউডের চেয়ে তামিল সিনেমা ইন্ডাস্ট্রি ঢের ভালো। সহানুভূতি ও ভালোবাসাহীন বলিউডে প্রবেশ করা চীনের প্রাচীর টপকানোর থেকে কোনো অংশে কম কঠিন নয়।’

সাক্ষাৎকারে কঙ্গনা আরও বলেন, ‘আঞ্চলিক সিনেমা ইন্ডাস্ট্রিতে অন্তত একটা সহানুভূতি থাকে, কিন্তু বলিউডের ব্যাপারটা আলাদা। আমাদের মতো অনেকেই সেখানে পরিযায়ী।

‘এত বৈচিত্র্য সেখানে। কখনও কখনও আবার একটা চাপা মানসিক উত্তেজনাও কাজ করে। সবাই একে-অপরকে টেনে নিচে নামানোর চেষ্টা করে। বলিউড এতটাই বিষাক্ত জায়গা হয়েছে যে, কেউ কারও ভালো দেখতে পারে না।’

এখানেই থামেননি কঙ্গনা। তিনি বলেন, ‘বলিউডে কেউ কারও প্রতি সহানুভূতিশীল নন। কোনো ভালবাসাও নেই, কিন্তু আঞ্চলিক সিনেমা ইন্ডাস্ট্রিতে সবাই একে-অপরকে সাহায্য করে। আর এজন্যই তাদের এত উন্নতি।’

এবার প্রশ্ন উঠেছে, কোন পরিপ্রেক্ষিতে কঙ্গনা এমন মন্তব্য করলেন?

ভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমে খবর, আগামী শুক্রবার মুক্তি পাচ্ছে দক্ষিণী অভিনেত্রী ও তামিলনাড়ুর সাবেক মুখ্যমন্ত্রী জয়ললিতা বায়োপিক থালাইভি। যে সিনেমায় প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন কঙ্গনা।

তাই স্বাভাবিকভাবেই দক্ষিণী দর্শকদের আবেগের কথাও মাথায় রাখতে হচ্ছে সিনেমার প্রযোজক ও অভিনেত্রী কঙ্গনাকে।

আর সেই পরিপ্রেক্ষিতে তামিল ইন্ডাস্ট্রির সঙ্গে বলিউডের তুলনা টেনে কঙ্গনা এই বিস্ফোরক মন্তব্য করেছেন বলে মনে করছেন অনেকে।

তবে এবারই প্রথম নয়, এর আগেও বলিউডকে ‘বুলিউড’ ও ‘নোংরা নর্দমা’ বলে আখ্যা দিয়েছিলেন কঙ্গনা।