The Bangladesh Today | Uniting people everyday

ঢাকা শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১

৪০০ বছর ধরে চলছে ‘ডলফিন পিটিয়ে মারার উৎসব’!

৪০০ বছর ধরে চলছে ‘ডলফিন পিটিয়ে মারার উৎসব’!
ছবি: সংগৃহীত

সম্প্রতি বিলুপ্ত হওয়ার ঝুঁকির তালিকায় এসেছে ডলফিনের নাম। নানা কারণে এরা হত্যার শিকার হয়। তবে উত্তর আটলান্টিক মহাসাগরের ফ্যারো দীপপুঞ্জে রীতিমতো উৎসব করে হত্যা করা হয় ডলফিন। চারশ বছর ধরে চলে আসছে এই উৎসব।

ডেনমার্কের অধীনে স্বশাসিত অঞ্চল ফ্যারো। গত রবিবার সেখানে পালিত হয় গ্রিন্ডাড্র্যাপ নামের এই উৎসব। এদিন এক হাজার চারশর বেশি ডলফিন হত্যা করা হয়েছে। পরিবেশ বিজ্ঞানী, সমুদ্র ও তার জীবনচক্র নিয়ে কাজ করা বিশেষজ্ঞরা এই নির্বিচারে প্রাণীহত্যার নিন্দা করেছেন। তারা অবিলম্বে এই প্রথা বন্ধের দাবি তুলেছেন।

এমনকি একসময় শিকার উৎসবে যুক্ত ছিল, এরকম একটি সংস্থার সাবেক চেয়ারম্যান জানিয়েছেন, এ বছর এত বেশি প্রাণীহত্যা করা হয়েছে যে তিনি নিজেকে উৎসব থেকে সরিয়ে নিয়েছেন।

পরিবেশ বিষয়ক সংস্থা সি শেফার্ড সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে একটা দীর্ঘ ভিডিও পোস্ট করে জানিয়েছে, শিকার উৎসবে এক হাজার ৪২৮টি ডলফিন মারা হয়েছে। এই ডলফিনগুলোর একপাশ সাদা। এর আগে কখনো এত ডলফিন হত্যা করা হয়নি।

সুইজারল্যান্ডভিত্তিক সংস্থা ওশন কেয়ার বলেছে, শিকার উৎসবের নামে যেভাবে প্রাণী হত্যা করা হয়েছে তা মানা যায় না। সব সীমারেখা তারা পার করে গেছে।

জার্মান সংবাদমাধ্যম ডয়েচে ভেলে এক প্রতিবেদনে জানায়, ফ্যারো দ্বীপপুঞ্জের মানুষ প্রতিবছর এক হাজারের মতো সামুদ্রিক প্রাণী হত্যা করেন। গতবছর তারা ৩৫টি ডলফিন মেরেছিলেন। এই শিকারে অংশ নেন বহু মানুষ। বিভিন্ন গোষ্ঠী নৌকায় করে ডলফিন ও পাইলট তিমিকে তাড়িয়ে তীরের দিকে নিয়ে যায়। তারপর ছুরি দিয়ে প্রাণীটিকে মারা হয়। এ নিয়ে স্থানীয় আইনও রয়েছে।

অবশ্য প্রাণীর মাংস ও ব্লাডার স্থানীয় মানুষদের মধ্যে বিলি করে দেওয়া হয় সেখানে।

 


সর্বশেষ

আরও পড়ুন