The Bangladesh Today | Uniting people everyday

ঢাকা মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১

বাজিতপুরে সম্পদ দখল করে সৎ মাকে বাড়ি থেকে বের করে দেবার অভিযোগ

বাজিতপুরে সম্পদ দখল করে সৎ মাকে বাড়ি থেকে বের করে দেবার অভিযোগ

মো. নজরুল ইসলাম, অষ্টগ্রাম (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি: স্বামীসহ তিন মেয়ে নিয়ে সুখেই দিন কাটছিল আতাবুন্নেছার। বংশ রক্ষার জন্য তার স্বামী আবদুল হাসিমের প্রয়োজন ছেলে সন্তানের। আতাবুন্নেছার গর্ভে ছেলে সন্তান না হওয়ায় তার স্বামী দ্বিতীয় বিয়ে করেন। দ্বিতীয় স্ত্রীর গর্ভে জন্ম নেয় তিন ছেলে তিন মেয়ে। ছেলে মেয়েরা বড় হয়।

২০০১ সালে মারা যান স্বামী আবদুল হাসিম। আর তখনই কপাল পুরে আতাবুন্নেছার। ঊনিশ বছর আগে তার সৎ ছেলেরা সমস্ত সম্পত্তি দখল করে জোর পূর্বক তাকে বের করে দেন বাড়ি থেকে। আর ততদিনে শতবর্ষ অতিক্রম করেছেন বৃদ্ধা।

ঘটনাটি ঘটেছে কিশোরগঞ্জের বাজিতপুর উপজেলার হাওর বেষ্টিত মাইজচর ইউনিয়নের বাহেরবালী গ্রামে। উক্ত গ্রামে শতবর্ষী মা আতাবুন্নেছার সমস্ত সম্পত্তি সৎ ছেলেরা দখল করে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাস্থলে গিয়ে এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে এর সত্যতা পাওয়া যায়। 

বাহেরবালী গ্রামের বাসিন্দা মাওঃ আব্দুল্লাহ এ প্রতিনিধিকে জানান, শতবর্ষী বৃদ্ধা আতাবুন্নেছার স্বামীর প্রায় কোটি টাকার সম্পত্তি রয়েছে। তার স্বামী আবদুল হাসিমের দ্বিতীয় স্ত্রীর সন্তানেরা প্রথম স্ত্রী আতাবুন্নেছার অংশের সমস্ত সম্পত্তি দখল করে তাকে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছে। তিনি এখন তার মেয়ে খুদেজা খাতুনের ঘরে এসে আশ্রয় নিয়েছেন।

খুদেজার বাড়িতে গিয়ে একটি জরাজীর্ণ ঘরে দেখা হয় বয়সের ভাড়ে নূয়ে পড়া অসুস্থ্য বৃদ্ধা আতাবুন্নেছার সঙ্গে। কান্না জড়িত কন্ঠে তিনি বলেন, আমার হতি পুতেরা (সৎ ছেলেরা) সব সম্পদ দখল কইরা আমারে বাড়ি থাইকা বাইর কইরা দিছে। আমি খুব কষ্টে দিন কাডাইতেছি। 

এ বিষয়ে তার মেয়ে খুদেজা খাতুন বলেন, আমার সৎ ভাইয়েরা আমার ও আমার মায়ের সকল সম্পত্তি দখল করে আমার মাকে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছে। টাকার অভাবে মায়ের চিকিৎসাও করাতে পারছিনা। আমার ও আমার মায়ের সকল সম্পত্তি উদ্ধার করা সম্ভব হলে মায়ের চিকিৎসাসহ সকল সমস্যার সমাধান হত।

এ বিষয়ে বাজিতপুর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মাজহারুল ইসলাম এ প্রতিনিধিকে জানান, এ বিষয়ে একটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
 


আরও পড়ুন