The Bangladesh Today | Uniting people everyday

ঢাকা সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১

অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন করতে বিড়ম্বনায় বাউফলের হাজার হাজার শিক্ষার্থী

তথ্য গোপন করে শিক্ষার্থীদের ঘাড়ে চাপিয়ে দেয়া হয়েছে শিক্ষকদের কাজ

তথ্য গোপন করে শিক্ষার্থীদের ঘাড়ে চাপিয়ে দেয়া হয়েছে শিক্ষকদের কাজ
ছবি: টিবিটি

অতুল পাল, বাউফল (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি: দেড় বছরেরও অধিক সময় পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে গিয়ে বাংলাদেশ শিক্ষা তথ্য ও পরিসংখ্যান ব্যুরো (ব্যানবেইস) কর্তৃক প্রদত্ত “শিক্ষা তথ্য ছক” পূরণে শিক্ষার্থীরা বিড়ম্বনার স্বীকার হচ্ছেন। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নির্দেশনা এবং ইউনিয়ন পরিষদ কর্তৃপক্ষের মধ্যে তথ্যের গরমিলে দেখা দিয়েছে নানা জটিলতা। এ নিয়ে শিক্ষার্থীদের মধ্যে হতাশা দেখা দিয়েছে। 

জানা গেছে, চলতি বছরের ২২ মার্চ ব্যানবেইস কর্তৃপক্ষ প্রত্যেক শিক্ষার্থীর ইউনিক আইডি দেয়ার জন্য তথ্য চেয়ে বিভিন্ন উপজেলা শিক্ষা অফিসে চিঠি দেন। কিন্তু বাউফলে ওই চিঠির নির্দেশনা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানদের নিয়ে সভা ডাকা হয়েছে চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহে। ১২ সেপ্টেম্বর বিদ্যালয় খোলার পর প্রত্যেক শিক্ষার্থীদের হাতে ব্যানবেইস কর্তৃপক্ষের দেয়া চার পাতার একটি “শিক্ষা তথ্য ছক” ধরিয়ে দিয়ে তাহা পূরণ করে ২৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে বিদ্যালয়ে জমা দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়। ওই শিক্ষা তথ্য ছকে অন্যান্য কাগজপত্রের মধ্যে শিক্ষার্থীর অনলাইন জন্ম নিবন্ধন সনদ বাধ্যতামূলক সংযুক্ত করতে বলা হয়েছে। এই কাজগুলো বিদ্যালয়েরই করার কথা থাকলেও বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তথ্য গোপন করে শিক্ষার্থীদের ইউনিয়ন তথ্য সেবা কেন্দ্র থেকে অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন করার নির্দেশনা দেন।

শিক্ষার্থীরা ইউনিয়ন পরিষদের তথ্য সেবা কেন্দ্রে অনলাইন জন্ম নিবন্ধন করতে গেলে প্রত্যেক শিক্ষার্থীর অনলাইন জন্ম নিবন্ধন করার পূর্বে পিতা-মাতা কিংবা প্রকৃত অভিভাবকের অনলাইন জন্ম নিবন্ধন বাধ্যতামূলক করতে হবে বলে জানানো হয়। এছাড়া তাদের সার্ভার কোন আবেদন গ্রহণ করছে না। এমনকি অনলাইনে পিতা-মাতা কিংবা অভিভাবক এবং পরে শিক্ষার্থীর অনলাইন জন্ম নিবন্ধন করে সনদ পেতে দুই-তিন মাসও সময় লাগতে পারে বলে ইউনিয়ন তথ্য সেবা কেন্দ্র থেকে জানানো হয়। এমতাবস্থায় হতাশা ও উদ্বিগ্নতার মাঝে দিন কাঠাচ্ছে এলাকার অভিভাবক-শিক্ষার্থীরা।

বাউফলের একাধিক প্রধান শিক্ষকের সাথে কথা বলে জানা যায়, পিতা-মাতা কিংবা অভিভাবকের অনলাইন জন্ম নিবন্ধন বাধ্যতামূলক নয়। দুই পক্ষের দুধরণের বক্তব্য এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের তথ্য গোপনের ফলে  শিক্ষার্থী এবং অভিভাবকরা পড়েছেন মহা বিড়ম্বনায়। এদিকে প্রতিটি অনলাইন জন্ম নিবন্ধনের আবেদনের জন্য ইউনিয়ন তথ্য সেবা কেন্দ্র নিচ্ছে ২০০ টাকা। কোন কোন ক্ষেত্রে বেশিও নেয়ার অভিযোগ রয়েছে। 

নাম প্রকাশ না করার শর্তে জনৈক প্রধান শিক্ষক জানান, ব্যানবেইস থেকে পাঠানো পরিপত্র নিয়ে অনেক আগেই প্রতিষ্ঠান প্রধানদের সাথে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার মিটিং করা উচিৎ ছিল। তাহলে এই ফরমটি পূরণে শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীরা সময় পেত। অপরদিকে ব্যনবেইসের সিটিজেন রেজিস্ট্রেশন ভাইটাল সার্ভার (সিআরভিএস) নিয়ন্ত্রণ করে নির্বাচন কমিশন। একারণেও এধরণের জটিলতা দেখা দিয়েছে। 

এ বিষয়ে বাউফল উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো. নাজমুল হক জানান, অভিভাবকদের কেবলমাত্র জাতীয় পরিচয় পত্রের অনুলিপি দরকার হবে। জাতীয় পরিচয় পত্র না থাকলে জন্ম নিবন্ধন (এনালগ বা অনলাইন) লাগবে। অপরদিকে শিক্ষার্থীদের অনলাইন জন্ম নিবন্ধন স্ব স্ব বিদ্যালয়েই করার কথা। এ নিয়ে শিক্ষকদের প্রশিক্ষণও দেয়া হয়েছে এবং প্রতি শিক্ষার্থীর অনুকুলে ৩০ টাকা করে সরকারের পক্ষ থেকে বিদ্যালয়গুলোকে দেয়া হয়েছে। শিক্ষার্থীদের হয়রানিমূলকভাবে ইউনিয়ন তথ্য সেবা কেন্দ্রে পাঠানো ঠিক না। যদি এমনটা কোন প্রতিষ্ঠান করে, তবে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।


আরও পড়ুন