The Bangladesh Today | Uniting people everyday

ঢাকা সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১

লাওসের বাদুড়ে মিলেছে করোনা সদৃশ্য ভাইরাস

লাওসের বাদুড়ে মিলেছে করোনা সদৃশ্য ভাইরাস
ছবি: সংগৃহীত

নভেল করোনাভাইরাসের উৎসের ব্যাপারে নতুন সূত্র পেয়েছে বিজ্ঞানীরা। লাওসের গুহায় বাস করা বাদুড়ের মধ্যে মানুষের দেহে সংক্রামিত হওয়ার মতো সম্ভাব্য ভাইরাসের অস্তিত্ব পেয়েছেন তারা।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনে করোনা মহামারি ছড়িয়ে পড়ে। কিছু বিজ্ঞানী দাবি করেছেন, বাদুড় বা অন্য কোনো প্রাণি থেকে মানুষের মধ্যে ভাইরাসটি সংক্রমিত হয়েছে। যুক্তরাজ্য দাবি করে আসছে, চীনের গবেষণাগার থেকে এই ভাইরাসের উৎপত্তি। তবে চীন এই অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পক্ষ থেকে বিজ্ঞানীদের একটি দল চীনে গেলেও তাদেরকে যথাযথভাবে কাজ করতে দেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ উঠেছে। এর ফলে করোনার উৎস দেশ নিয়ে বিতর্ক রয়ে গেছে এখনও।

ফ্রান্সের প্যাস্টিউর ইনিস্টিটিউট ও ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব লাওসের গবেষকরা জানিয়েছেন, অনুসন্ধানে তারা দেখতে পেয়েছেন, সার্স কোভ-২ এর সঙ্গে জিনগত মিল থাকা ভাইরাস চীনের প্রতিবেশী দেশ লাওসের উত্তরাঞ্চলের গুহাগুলোতে থাকা বাদুড়ের দেহে পাওয়া গেছে। ভিয়েন্টাইন প্রদেশের গুহাগুলোতে থাকা শতাধিক বাদুড় পরীক্ষা করে তিনটি ভাইরাস পাওয়া গেছে। এগুলো কোভিড-১৯ এর জন্য দায়ী ভাইরাসের সঙ্গে , বিশেষ করে মানবকোষে আক্রমণ করার প্রক্রিয়ায় নিবিড়ভাবে সম্পর্কযুক্ত। 

প্যাস্টিউর ইনিস্টিটিউটের গবেষক দলের প্রধান মার্ক ইলোইট জানিয়েছেন, মিল থাকলেও সার্স কোভ-২ ও লাওসে পাওয়া ভাইরাসগুলোর মধ্যে মুখ্য অমিল এখনও রয়ে গেছে। তবে মহামারির উৎস অনুসন্ধানে এটি বড় একটি পদক্ষেপ। এই গবেষণায় এটা নিশ্চিত হওয়া যাচ্ছে যে, বাদুড়ের মাধ্যমে করোনা মহামারি সারাবিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে।


আরও পড়ুন