The Bangladesh Today | Uniting people everyday

ঢাকা রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১

অস্ট্রেলিয়ার সব শর্ত মানতে গিয়ে এ কেমন সিদ্ধান্ত বিসিবির?

অস্ট্রেলিয়ার সব শর্ত মানতে গিয়ে এ কেমন সিদ্ধান্ত বিসিবির?
প্রেস ব্রিফিংয়ে বিসিবি কর্তারা। ছবি: সংগৃহীত

বাংলাদেশ সময় বিকেল ৪টা ১০ মিনিটে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের কথা ছিল অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট দলকে বহন করে আনা কোয়ান্টাস চার্টার্ড বিমানটির। সে কারণে বাংলাদেশের তাবৎ গণমাধ্যমও বিমানবন্দরে ভিড় করে বিকাল ৩টা থেকেই।

বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) দিনভর ঝড়া শ্রাবণের বৃষ্টি উপেক্ষা করেও সবাই অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করতে লাগলেন, কখন বেরিয়ে আসবেন অজিরা।

অবশেষে অপেক্ষার ক্ষণ ফুরোল। পূর্বনির্ধারিত সময় অনুযায়ী বিকেল ৪টা ১০ মিনিটেই বিকট আওয়াজ তুলে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে অজিদের বহরবাহী কোয়ান্টাস।

এরপর তাদের ছবি নেওয়ার পালা। কিন্ত বিগত সিরিজগুলোর মতো এবার তাদের আগমন ভিআইপ গেট দিয়ে হলো না। করোনা মহামারির সময়ে সফরকারীদের নিরাপত্তার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে বিমানবন্দরের রানওয়েতে পাঠানো হলো দু’টি টিম বাস। আর তাদের আগমনের জন্য নির্ধারণ করা হলো ৮ নাম্বার গেটটি, যা মুড়ে দেওয়া হয় নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তার চাদরে। পুলিশ, এপিবিএন সদস্যরা তো ছিলেনই। সাদা পোশাকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উপস্থিতিও দৃষ্টি এড়িয়ে গেল না।

দেশের ক্রিকেটের স্বার্থে অস্ট্রেলিয়ার সব শর্ত মেনে নিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

আশঙ্কা ছিল কোনো একটি সমস্যা দেখলেই যদি বেঁকে বসে অস্ট্রেলিয়া! যদি সফর বাতিল করে দেয় তারা!

যে কারণে করোনাবিষয়ক অস্ট্রেলিয়ার সব শর্ত মেনে ঘরের মাঠে পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরু করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ।

তবে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার সব শর্ত মানতে গিয়ে এবার অদ্ভুত কাণ্ডই ঘটাতে যাচ্ছে বিসিবি।

অস্ট্রেলিয়ার সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করার পাশাপাশি অসিদের করোনাভাইরাস টেস্টের রেজাল্টও গণমাধ্যমের কাছে প্রকাশ করবে না বলে জানিয়েছে বিসিবি।

বোর্ডের একটি সূত্র জানায়, ‘বাংলাদেশ-অস্ট্রেলিয়া সিরিজের কোভিড টেস্টের রিপোর্ট বাইরে যাবে না। এটি বিসিবি আর অস্ট্রেলিয়া দল জানবে শুধু। কোনো পজিটিভের খবর এলে তো কোনো ম্যাচ বা সিরিজ স্থগিত হয়ে যাবে বা পিছিয়ে যাবে। তখন আপনারা জানতে পারবেন। অফিসিয়ালি এবার টেস্টের ফল জানতে পারবেন না।’

১০ দিনের সফরে এসেছে টিম অস্ট্রেলিয়া। এই সময়ের মধ্যে ৫ বার করোনাভাইরাস পরীক্ষা করা হবে বাংলাদেশ ও অস্ট্রেলিয়া দলের। সব মিলিয়ে এই সিরিজে কোভিড টেস্ট হবে ৯ বার। সব ফলই গোপন থেকে যাবে।

বোঝাই যাচ্ছে, যে কোনো মূল্য অস্ট্রেলিয়ানদের মন রক্ষায় ব্যস্ত বিসিবি। ২০১৭ সালের পর অর্থাৎ চার বছর বাদে বাংলাদেশে এসেছেন অসিরা। সিরিজের সফল সমাপ্তি টানতে চায় বিসিবি।

সফলভাবে অস্ট্রেলিয়া সিরিজ শেষ করতে পারলে অন্য সব দেশকেও সহজে আমন্ত্রণ জানানো যাবে। এমন বিষয় পরিকল্পনায় রেখেই অস্ট্রেলিয়ার শর্তের বোঝা সহাস্যে হজম করছে বিসিবি।

অস্ট্রেলিয়ার সেসব শর্তের বলি হয়েছেন মুশফিক-লিটন। তারা সিরিজ খেলতে পারছেন না।

১০ দিনের সফরে ৫টি ম্যাচ খেলে চলে যাবে অস্ট্রেলিয়া। যেখানে তিন দিনই রুম কোয়ারেন্টিইন।

আগামী ৩, ৪, ৬, ৭ ও ৯ আগস্ট মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে পাঁচ ম্যাচ সিরিজের টি টোয়েন্টি খেলবে স্বাগতিক বাংলাদেশ ও সফরকারি অস্ট্রেলিয়া । প্রতিটি ম্যাচই শুরু হবে সন্ধ্যা ৬টায়।


সর্বশেষ